করোনা যুদ্ধে নামল বায়ুসেনা! সময় বাঁচাতে আকাশ পথে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে অক্সিজেনের খালি ট্যাঙ্ক

করোনা যুদ্ধে নামল বায়ুসেনা! সময় বাঁচাতে আকাশ পথে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে অক্সিজেনের খালি ট্যাঙ্ক / ছবি সৌজন্যেঃ এএনআই
করোনা যুদ্ধে নামল বায়ুসেনা! সময় বাঁচাতে আকাশ পথে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে অক্সিজেনের খালি ট্যাঙ্ক / ছবি সৌজন্যেঃ এএনআই

দেশে দিনের পর দিন চড়ছে করোনার গ্রাফ। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সংক্রমণের হারও। এরই মধ্যে সারা দেশে অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। অক্সিজেন নিয়ে দেশ জুড়ে এখন শুধুই হাহাকার। চাহিদা অনুযায়ী অক্সিজেনের যোগান নেই। তাই ইতিমধ্যেই তীব্র অক্সিজেন সংকটের মধ্যে পড়েছে একের পর এক রাজ্যে। দেশের এই কঠিন পরিস্থিতিতে এবার পাশে এসে দাঁড়াল ভারতীয় বায়ু সেনা। রাজ্যগুলিতে দ্রুত অক্সিজেন সরবরাহ করার কাজে আকাশপথেই উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে অক্সিজেনের খালি ট্যাঙ্কার।

ভারতীয় বায়ুসেনার সি-১৭, আইএল- ৭৬, সি-১৩০ জে, এএন- ৩২ এবং আভরস এই বিমানগুলিকে কাজে লাগিয়ে, খালি অক্সিজেন ট্যাঙ্কারগুলিকে আকাশপথে অক্সিজেন ফিলিং স্টেশনের কাছাকাছি পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে৷ এর ফলে অক্সিজেন নেওয়ার জন্য ট্যাঙ্কারগুলি অনেক তাড়াতাড়ি ফিলিং স্টেশনে পৌঁছতে পারছে৷ তবে অক্সিজেন ভরার পর ট্যাঙ্কারগুলিকে ফের আকাশপথে উড়ানো বিপজ্জনক। অক্সিজেন যেহেতু অতি দাহ্য পদার্থ, তাই আকাশপথে তা নিয়ে যাওয়া ঝুঁকির কাজ। তাই ভরা অক্সিজেন ট্যাঙ্কারগুলিকে সড়কপথেই নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

অক্সিজেন গ্যাস আকারে নিয়ে যাওয়া গেলেও, চিকিৎসা ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় লিক্যুইড অক্সিজেন বিমানে পরিবহণ করা ঝুঁকিপূর্ণ। তবে যাত্রীবাহী এবং পণ্যবাহী বিমানে নির্দিষ্ট আইন মেনে ছোট অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে যাওয়ার অনুমতি মেলে৷ কিন্তু সামরিক বিমানের ক্ষেত্রে তা একেবারেই নিষিদ্ধ। এই কারণে বায়ুসেনার বিমান উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদের হিন্দান বায়ুসেনা ঘাঁটি থেকে আকাশপথে পশ্চিমবঙ্গের পানাগড়ে পৌঁছে দিচ্ছে খালি ট্যাঙ্কার। সেখান থেকে অক্সিজেন ভরা অবস্থায় ট্যাঙ্কারগুলি সড়ক পথেই অন্যান্য রাজ্যের দিকে রওনা হচ্ছে৷ একই পদ্ধতিতে আকাশপথে গুজরাতের জামনগরে খালি ট্যাঙ্কার পৌঁছে দেওয়ার পর, সেখান থেকে অক্সিজেন ভরে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে সড়কপথে ফিরছে সেই ট্যাঙ্কার।

পিছিয়ে নেই ভারতীয় রেলও। অক্সিজেন পরিবহনের জন্য ভারতীয় রেলে সেনার ট্যাঙ্ক এবং কামান বহনের জন্য ব্যবহৃত ৩২টি সুবিশাল ওয়াগনকেও কাজে লাগানো হয়েছে৷ তবে শুধুমাত্র অক্সিজেন পরিবহণই নয়! ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে, কোচি, মুম্বাই, বিশাখাপত্তনম এবং বেঙ্গালুরু থেকে চিকিৎসক এবং নার্সদের দিল্লিতে ডিআরডিও-র পাঁচশো বেডের কোভিড হাসপাতালেও পৌঁছে দেওয়া হয়েছে৷ লেহতে মোবাইল করোনা টেস্টিং ল্যাবের সরঞ্জামও পৌঁছে দিয়েছে বায়ুসেনা৷

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.