SSC গ্রুপ ডি নিয়োগ মামলার CBI তদন্তে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের স্থগিতাদেশ!

SSC গ্রুপ ডি নিয়োগ মামলার CBI তদন্তে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের স্থগিতাদেশ!
SSC গ্রুপ ডি নিয়োগ মামলার CBI তদন্তে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের স্থগিতাদেশ!

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ এসএসসি নিয়োগ মামলায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই-এর তদন্তে অন্তর্বর্তী থসগিতাদেশ জারি করল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। জানা গিয়েছে, আপাতত তিন সপ্তাহের জন্য এই স্থগিতাদেশ বহাল থাকবে। অর্থাৎ রাজ্যের গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে বেনিয়মের মামলায় এখনই তদন্ত শুরু করতে পারবে না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। স্বাভাবিকভাবেই আদালতের এই নির্দেশে খানিকটা স্বস্তি পেল রাজ্য সরকার। এই মামলার আগামী শুনানি রয়েছে ২৯ নভেম্বর অর্থাৎ সোমবার। উল্লেখ্য, আজই সিবিআইকে যাবতীয় নথি দেওয়ার কথা ছিল এসএসসি’র।

কিন্তু গ্রুপ ডি পদে নিয়োগে সিবিআই তদন্তের নির্দেশের বিরুদ্ধে ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করে রাজ্য সরকার। সেই আবেদনের ভিত্তিতে আজ উপরিউক্ত রায় দেয় হাইকোর্টের ডিভিশন। আজ আদালতে অ্যাডভোকেট জেনারেল সওয়াল করেন, রাজ্য পুলিশের উপরে আস্থা না রেখে, কেন সিবিআইকে তদন্তের ভার দেওয়া হল? রাজ্যকে কেন তদন্তের সুযোগই দেওয়া হল না? তাই এই মুহূর্তে সিবিআই অনুসন্ধানের কোনও প্রয়োজন নেই। পাল্টা সওয়াল করেন মামলাকারীর আইনজীবীও। সেসব শুনে তিন সপ্তাহের জন্য সিবিআই অনুসন্ধানের উপরে স্থগিতাদেশ দেয় হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ।

২০১৬ সালে গ্রুপ ডি কর্মী হিসাবে প্রায় ১৩ হাজার নিয়োগের সুপারিশ করে রাজ্য। সেই নিয়োগেই একাধিক বেনিয়মের অভিযোগ ওঠে। শেষপর্যন্ত গত ২৩ নভেম্বর সেইসমস্ত অভিযোগের তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। এরপরই মামলাকারীর তরফে আজ সওয়াল করা হয়, অন্তর্বর্তীকালীন স্থাগিতাদেশ দেওয়ার অর্থ তথ্য প্রমাণ নষ্ট করা। সারদা মামলায় দেখা গিয়েছে, কীভাবে তথ্যপ্রমাণ নষ্ট করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে সব তথ্যপ্রমাণ সুরক্ষিত রাখতে হবে। মামলাকারীর সওয়াল শুনে আদালতের তরফে বলা হয়, এই সব বিতর্কের কেন্দ্র রয়েছে স্কুল সার্ভিস কমিশন।

যে ৫০০ নথি নিয়ে অভিযোগ উঠেছে, সেই সমস্ত নথি চূড়ান্তভাবে সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। এর পাশাপাশি এও বলা হয়েছে, চাইলে মামলার সমস্ত পক্ষ আগামী সোমবারের মধ্যে আদালতে হলফনামা জমা করতে পারে। উচ্চ পর্যায়ের সিট গড়ে এই বেনিয়মের অভিযোগের তদন্তের আরজি জানিয়েছিল রাজ্য। তবে, আপাতত তাদের সেই আরজি গ্রহণ করেনি আদালত।

এদিকে সিবিআই অনুসন্ধানে স্থাগিতাদেশ নিয়ে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘এই যে সিবিআইকে দিয়ে অনুসন্ধান করা হচ্ছিল এটা একেবারেই রাজ্যের অধিকারের উপরে হস্তক্ষেপ। সেই জন্যই সরকার ডিভিশন বেঞ্চে আপিল করে। ডিভিশন বেঞ্চ স্থগিতাদেশ দিয়েছে। এতে আমরা আনন্দিত।’