বৃহস্পতিবার, ১৯ মে, ২০২২

কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার পর দেশের প্রথম মৃত্যু! সত্যতা স্বীকার করে নিল কেন্দ্র

০৩:৩০ পিএম, জুন ১৫, ২০২১

কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার পর দেশের প্রথম মৃত্যু! সত্যতা স্বীকার করে নিল কেন্দ্র

করোনা মোকাবিলায় দেশ জুড়ে চলছে টিকাকরণ। দেশের সমস্ত মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যে প্রতিনিয়ত কাজ করে চলেছে সরকার। ইতিমধ্যেই দেশের অধিকাংশ মানুষই টিকা পেয়ে গিয়েছেন। বাকি রয়েছেন বেশ কিছু নাগরিক। তাঁদেরও দ্রুত টিকা দেওয়ার কাজ সম্পন্ন করার প্রচেষ্টা জারি রয়েছে। এরমধ্যেই প্রকাশ্যে এল, কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় এক ব্যক্তির মৃত্যুর খবর। যা চিন্তা বাড়াচ্ছে সরকারের। তবে মৃত্যুর খবরের সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছে কেন্দ্র।

জানা গিয়েছে, গত ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩১ মার্চের মধ্যে টিকা নেওয়া তিন ব্যক্তির শরীরে অ্যানাফিলেক্সিস (Anaphylaxis)-এর দেখা মিলেছে। যে ঘটনা বিরলের মধ্যে বিরলতম। অ্যানাফিলেক্সিস এক ভয়ঙ্কর রকমের অ্যালার্জি। যা মুহূর্তের মধ্যেই শরীরে প্রভাব ফেলে এমনকি মৃত্যুও অসম্ভব নয়৷ আর এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াতেই ওই তিন ব্যক্তির মধ্যেই একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই ভ্যাকসিন নেওয়ার পর এই প্রথম মৃত্যুর খবর মেনে নিয়েছে কেন্দ্রও। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, সম্ভবত কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার ফলেই এই মৃত্যু হয়েছে।

অ্যানাফিলেক্সিসে মৃত ওই ব্যক্তির বয়স ছিল ৬৮ বছর। চলতি বছরের ৮ মার্চ তিনি কোভিড ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন। তারপরই তাঁর শরীরে অ্যানাফিলেক্সিসের প্রভাব লক্ষ্য করা গিয়েছিল৷ ওই ব্যক্তি ছাড়াও ২২ বছরের এক ছেলে এবং ২১ বছরের এক মেয়ের শরীরে ওই অ্যালার্জির প্রমাণ মিলেছে। তাঁরা ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন এই বছরের ১৬ এবং ১৯ জানুয়ারি। তবে ওই দুজনকেই হাসপাতালে চিকিৎসা করা হয়৷ তারপর দুজনেই সুস্থ হয়ে ওঠেন।

ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় দেশের প্রথম মৃত্যুর পর জাতীয় AEFI কমিটি (Adverse event following immunization)-এর চেয়ারপার্সন ডক্টর এনকে অরোরা জানিয়েছেন, "ভ্যাকসিন নেওয়ার পর এটাই দেশের প্রথম মৃত্যুর ঘটনা। কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার পর শরীরে অ্যানাফিলেক্সিসের প্রভাব গিয়েছিল। কিন্তু এটি একটি বিরল ঘটনা। যদি বৃহত্তর পরিধিতে দেখা যায় তাহলে দেশ জুড়ে এত টিকাকরণের মাঝে এই ঘটনা খুবই বিরল৷ আমরা মোটামুটি ৩১টি কেস নিয়ে তদন্ত করেছি। এখনও পর্যন্ত মাত্র একজনের শরীরে মৃত্যুর কারণ হিসেবে এটি পাওয়া গিয়েছে। বাকি দু'জনের শরীরে অ্যানাফিলেক্সিস থাকলেও, তার সঙ্গে ভ্যাকসিন নেওয়ার কোনও সম্পর্ক ছিল না৷" পাশাপাশি তিনি প্যানিক না করতে অনুরোধ করে জানান, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অ্যানাফিলেক্সিস হলে তার চিকিৎসা সম্ভব। তাই অযথা ভয় পাবেন না।