১মে থেকেই আঠারোর্ধদের টিকা! তার আগেই রাজ্যগুলিকে একগুচ্ছ নির্দেশ দিল কেন্দ্র

১মে থেকেই আঠারোর্ধদের টিকা! তার আগেই রাজ্যগুলিকে একগুচ্ছ নির্দেশ দিল কেন্দ্র
১মে থেকেই আঠারোর্ধদের টিকা! তার আগেই রাজ্যগুলিকে একগুচ্ছ নির্দেশ দিল কেন্দ্র

দেশের করোনা পরিস্থিতি খানিকটা সামাল দিতে ১ মে থেকে আঠারোর্ধদের জন্য শুরু হচ্ছে টিকাকরণ। এই তৃতীয় পর্যায়ের টিকাকরণের ১৮ থেকে ৪৫ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়ার আওতায় আর কথা ভেবেছে কেন্দ্র। এই টিকাকরণের আগে এবার তাই রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গুলির জন্য নয়া নির্দেশিকা ঘোষণা করল কেন্দ্র।

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ, করোনা সংক্রান্ত বিশেষ কমিটির চেয়ারপারসন ডঃ আরএস শর্মা এক বিশেষ বৈঠকে বসেন। মূলত ১ মে থেকে কিভাবে এত মানুষকে টিকা দেওয়া হবে, কীভাবে সে প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা যাবে, এছাড়াও টিকা দিতে গেলে অগ্রিম কি কি ব্যবস্থা নিতে হবে তা নিয়েই ছিল বৈঠক।

এদিনের বৈঠক শেষে একগুচ্ছ নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্র। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গুলিকে ডিআরডিও, রেল, সিএসআইআর সহ বিভিন্ন সংস্থার সাহায্য নিয়ে পর্যাপ্ত পরিমাণে কোভিড হাসপাতাল এবং করোনা কেয়ার ইউনিট তৈরি রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও রাজ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে অক্সিজেন, ওষুধ রয়েছে কি-না সে দিকেও নজর দিতে বলা হয়েছে।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কেন্দ্রের জারি করা নির্দেশিকা:

কো-উইন অ্যাপে প্রত্যেকটি হাসপাতালকে কত ভ্যাকসিন রয়েছে তাদের কাছে সেই তথ্য এবং তার দাম জানাতে হবে। এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট রাজ্য প্রশাসনকে নজর দিতে হবে।

কো-উইন অ্যাপের মাধ্যমে যারা ১৮ থেকে ৪৫ বছরের তারা ভ্যাকসিন পাবে, সেকথা সর্বসমক্ষে প্রচার করতে হবে।

বাজার থেকে সরাসরি ভ্যাকসিন রাজ্য কিনবে কিনা সে ব্যাপারে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

টিকাকরণ কেন্দ্রের কর্মীদের সঠিকভাবে যত দ্রুত সম্ভব প্রশিক্ষণ দিতে হবে।

যারা ভ্যাকসিন নেওয়ার যোগ্য তাদের জন্য কো-উইন অ্যাপের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময়ে ধার্য করতে হবে।

যেহেতু প্রচুর মানুষ এবার টিকা নেবেন তাই টিকাকরণ কেন্দ্রের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে স্থানীয় প্রশাসনকে।

বেসরকারি হাসপাতাল বেসরকারি সংস্থা ও অন্যান্য বড় বড় সংস্থার সাহায্যে আরও বেশিসংখ্যক করোনার টিকা করন কেন্দ্র তৈরি করতে হবে দ্রুততার সঙ্গে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.