মাথা ব্যথার কারণ হয়ে উঠছে করোনার ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট! পরিস্থিতির মোকাবিলায় কেন্দ্র নিল এই সিদ্ধান্ত

মাথা ব্যথার কারণ হয়ে উঠছে করোনার ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট! পরিস্থিতির মোকাবিলায় কেন্দ্র নিল এই সিদ্ধান্ত
মাথা ব্যথার কারণ হয়ে উঠছে করোনার ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট! পরিস্থিতির মোকাবিলায় কেন্দ্র নিল এই সিদ্ধান্ত / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব এখন শেষ পর্যায়ে। এর মধ্যেই আবার ক্রমশ বিস্তার ঘটছে করোনা ভাইরাসের উন্নত এবং সর্বশেষ ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট। ক্রমশ ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে করোনার ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট। ইতিমধ্যেই সামনে এসেছে মোট ৫১ টি কেস।

সূত্রের খবর, মধ্যপ্রদেশে করোনার নতুন এই প্রজাতির কবলে পড়েছেন বেশ কিছু রোগী। মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। মহারাষ্ট্রেও নতুন করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা যা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে প্রশাসনের। এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার আটটি রাজ্য এবং একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন তৈরির নির্দেশ দিল কেন্দ্র। এর পাশাপাশি সেখানকার জেলাগুলিতে কোভিড-১৯ পরীক্ষা এবং টিকাকরণ জোরদার করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ জানান যে, তামিলনাড়ু, রাজস্থান, কর্ণাটক, পাঞ্জাব, অন্ধ্রপ্রদেশ, গুজরাট, হরিয়ানা সরকারকে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে। একই চিঠি গিয়েছে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের কাছেও। এইসব রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে এই নির্দেশিকা কার্যকর করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও আক্রান্তদের নমুনাগুলো INSACOG মনোনীত গবেষণাগারেও পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, রাজ্যগুলির যেসব জেলায় করোনার ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছে, সেই জেলাগুলোর উপর বেশি করে গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ। তিনি বলেছেন, ‘এই জেলাগুলিতে ভিড় নিষিদ্ধ করা প্রয়োজন। পাশাপাশি অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে সেখানে টিকাকরণ বাড়ানোও জরুরি।’ উল্লেখ্য, কেন্দ্রের পক্ষ থেকে আগেই জানানো হয়েছিল যে, করোনা ভাইরাসের উন্নত এবং সর্বশেষ প্রজাতি ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্টে দেশে এখনও পর্যন্ত ৫১ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

ন্যাশনাল সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোলের (NCDC) ডিরেক্টর সুজিত সিং জানিয়েছেন, মহারাষ্ট্রে ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্টের ২২টি ঘটনা সামনে এসেছে। অন্যদিকে, তামিলনাড়ুতে ৯টি, মধ্যপ্রদেশে ৭টি, কেরালায় ৩টি, পাঞ্জাব ও গুজরাটে ২টি এবং অন্ধ্রপ্রদেশ, ওড়িশা, রাজস্থান, জম্মু ও কাশ্মীর, হরিয়ানা এবং কর্ণাটকে একটি করে ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্টের খোঁজ পাওয়া মিলেছে। তাছাড়া ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্টের কারণে এখন পর্যন্ত দেশে তিনটি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তাই এখন থেকেই বিশেষ সতর্কতা নিচ্ছে কেন্দ্র। যাতে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে না যায়।