ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারে দেশ, আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যেই! করোনা নিয়ে সতর্কবাণী কেন্দ্রের

ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারে দেশ, আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যেই! করোনা নিয়ে সতর্কবাণী কেন্দ্রের
ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারে দেশ, আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যেই! করোনা নিয়ে সতর্কবাণী কেন্দ্রের / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশে ফের ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে করোনা। প্রতিদিন ঝড়ের গতিতে বাড়ছে সংক্রমণ। দেশের মধ্যে বেশ কিছু রাজ্যে করোনা সংক্রমণের হার কেন্দ্রের চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে। এইসব রাজ্যের মধ্যে মহারাষ্ট্রের অবস্থা সবথেকে খারাপ। বিশেষ করে মহারাষ্ট্রের মুম্বইয়ের অবস্থা খুবই ভয়ঙ্কর।

এদিকে গতকালের থেকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা একধাপে আরও অনেকটাই বেড়ে গেছে। পূর্ববর্তী লক্ষাধিকের রেকর্ড ভেঙে একলাফে সংক্রমণ অনেকটাই বেড়ে গেছে গত ২৪ ঘণ্টায়। আর এই সংক্রমণের হার দেখে রীতিমতো শঙ্কিত কেন্দ্র সরকার। আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যে বিরাট আকার ধারণ করতে পারে, তার আঁচ পেয়েই, আগাম সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন, গত বছরের থেকে এবছরে দ্রুত গতিতে সংক্রমণ হচ্ছে। আর এটা হওয়ার জন্য দায়ী, শুধুমাত্র মানুষের করোনা নিয়ে গা ছাড়া মনোভাব। মাস্ক পরছেন না অনেকেই। এর সঙ্গে মানা হচ্ছে কোনও গাইডলাইন।

উল্লেখ্য, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থেকে কেউ বাদ পড়ছেন না। ছোট থেকে বড় সকলেই করোনার কবলে পড়তে চলেছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই কারণেই দ্রুত সব বয়সের মানুষকেই ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মূলত, ১৮ বছর থেকে সকলকেই ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচি খুব শীঘ্রই শুরু হবে।

মঙ্গলবার করোনা প্রসঙ্গে এক সাংবাদিক বৈঠকে নীতি আয়োগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সদস্য ভি কে পাল জানিয়েছেন যে, দেশে এখন করোনা ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। জনসংখ্যার একটা বড় অংশের করোনা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তিনি আরও বলেন যে, করোনা সংক্রমণ রুখতে, প্রত্যেক দেশবাসীকে একজোট হয়ে কাজ করতে হবে। ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। তাঁর মতে, আগামী ৪ সপ্তাহ খুবই ভয়াবহ পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে চলেছে দেশ। তাই এখনই দেশবাসীকে সচেতন হতে হবে। নিজেদের ভুল শুধরে নিতে হবে এখনই। নয়ত অনেক দেরি হয়ে যাবে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.