হাইকোর্টের ভর্ৎসনার জের! মামলা তুলে নিল শিশু সুরক্ষা কমিশন

হাইকোর্টের ভর্ৎসনার জের! মামলা তুলে নিল শিশু সুরক্ষা কমিশন
হাইকোর্টের ভর্ৎসনার জের! মামলা তুলে নিল শিশু সুরক্ষা কমিশন

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সম্প্রতি কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেছিল শিশু সুরক্ষা কমিশন। কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল যে, রাজ্যে একুশের বিধানসভা নির্বাচন ৮ দফায় হওয়ার কারণে রাজ্যের বহু শিশুর ক্ষতি হয়েছে।

কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টের ভর্ৎসনার পর সেই মামলা প্রত্যাহার করে নিল শিশু সুরক্ষা কমিশন। শিশুদের প্রতি কী দায়িত্ব পালন করা হয়েছে কমিশনের তরফে? কমিশনের কাছে এই প্রশ্নের উত্তর জানতে চেয়েছিল হাইকোর্ট।

এই জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী। এর আগে এই মামলার শুনানিতে হাইকোর্টের বিচারপতি বলেছিলেন, ‘যে মামলা বিচারাধীন রয়েছে, সেই মামলা সংক্রান্ত কোনও তথ্য আপনাদের কাছে নেই। আপনারা ওয়েবসাইটে কোন কোন শিশু কতটা ক্ষতিগ্রস্ত সেই সংক্রান্ত কোন তথ্যও আপলোড করেননি। তখন কি আপনারা ঘুমোচ্ছিলেন?’ এই মামলার শুনানি চলাকালীন রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল। উল্লেখ্য, গত ১৬ জুন ছিল এই মামলার শুনানি। কমিশনকে ভর্ৎসনা করে বিচারপতি আরও বলেছিলেন, ‘বর্তমান করোনার অতিমারি সময়ে আপনারা কী কাজ করেছেন শিশুদের জন? আপনাদের ওয়েবসাইটে তো আপনাদের কাজের কোনও প্রতিফলনই দেখা যাচ্ছে না। তাহলে হঠাৎ করে এই বিষয় নিয়ে আপনারা ব্যস্ত হয়ে উঠলেন কেন?’

কমিশনের করা মামলায় বলা হয়েছিল যে, রাজ্যে ৮ দফায় বিধানসভা ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে বহু শিশুর ক্ষতি হয়েছে। করোনা আক্রান্ত শিশুদের কাছে সঠিক সময়ে স্বাস্থ্য পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়নি। কমিশনের এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্টে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল বলেন যে, ‘আপনাদের অভিযোগ, ৮ দফার নির্বাচনের কারণে এ রাজ্যের শিশুরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। কিন্তু যেখানে যেখানে ভোট ছিল না, সেখানে শিশুদের দুরাবস্থার কারণ কি?’ বিচারপতির এই বক্তব্যের অর্থ ছিল, তিনি দাবি করেছেন, নির্দিষ্ট এলাকায় ভোট মিটে যাওয়ার পর, সেখানে তো পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনও বাধা ছিল না। তাহলে, তা সম্ভব হয়নি কেন? বিচারপতির এই মন্তব্যের পরই, মামলা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্যের শিশু সুরক্ষা কমিশন।