শিশুপাচারে অভিযুক্ত প্রিন্সিপালের সঙ্গে একই মঞ্চে বিজেপির সাংসদ! ছবি পোস্ট করে আক্রামণ তৃণমূলের

শিশুপাচারে অভিযুক্ত প্রিন্সিপালের সঙ্গে একই মঞ্চে বিজেপির সাংসদ! ছবি পোস্ট করে আক্রামণ তৃণমূলের
শিশুপাচারে অভিযুক্ত প্রিন্সিপালের সঙ্গে একই মঞ্চে বিজেপির সাংসদ! ছবি পোস্ট করে আক্রামণ তৃণমূলের / এই ছবিটি টুইট করেছেন মন্ত্রী শশী পাঁজা

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ শিশু পাচারের মতো গুরুতর অভিযোগ উঠেছে স্কুলের প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে বাঁকুড়ার জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের প্রিন্সিপাল কেকে রাজোরিয়া-সহ পাঁচজনকে। ধৃতদের মধ্যে আবার একজন স্কুল কর্মীও রয়েছেন। সোমবারই অভিযুক্তদের আদালতে তোলা হয়।

জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত প্রিন্সিপাল রাজস্থানের বাসিন্দা। গত চার বছর ধরে তিনি বাঁকুড়ার জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের দায়িত্বে রয়েছেন। রবিবার তার বিরুদ্ধেই শিশুপাচারের মতো চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তোলেন স্থানীয় ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি সন্দীপ বাউরি। তিনি অভিযোগে জানিয়েছেন, ‘স্কুলের পাশেই আমাদের দলীয় কার্যালয়। এদিন আমাদের কর্মীরা দেখেন, চার শিশুকে জোর করে ৬০ (এ) জাতীয় সড়কের উপর দাঁড়িয়ে থাকা একটি মারুতি ভ্যানে তোলা হচ্ছে। সেই সময় সেখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন ওই স্কুলের প্রিন্সিপ্যাল। তাতে আমাদের ছেলেদের সন্দেহ হয়। এরপরই ওরা ছুটে যায়। কিন্তু ওই প্রিন্সিপ্যাল তখন সেখান থেকে পালিয়ে যান। তাতে আরও সন্দেহ বাড়ে।’

তিনি অভিযোগে আরও জানিয়েছেন, এরপর দেখা যায়, ওই গাড়ির ভিতরে চার শিশুকে তোলা হয়েছে। তৃণমূলের লোকেরাই ওই চার শিশুকে উদ্ধার করে সেখান থেকে। সঙ্গে সঙ্গে থানায় খবর দেওয়া হয়। এরপরই পুলিশের তৎপরতায় গ্রেফতার হন প্রিন্সিপাল, স্কুলের এক কর্মী-সহ পাঁচজন। এই ঘটনা প্রসঙ্গে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিবেক ভার্মা জানিয়েছেন, দুই শিশু কন্যাকে বেআইনিভাবে নিজের কাছে রেখে দেওয়ার পাশাপাশি একাধিক বেআইনি কাজকর্মে যুক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে এই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তদন্তও চলছে। শুধু তাই নয়, জানা গিয়েছে, বেশ কিছু প্রমাণও তদন্তকারীদের হাতে এসেছে।

শিশুপাচারে গ্রেফতার হওয়া বাঁকুড়ার জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের ধৃত অধ্যক্ষের সঙ্গে বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকারের যোগের অভিযোগ তুলে এবার আক্রমণ করলেন রাজ্যের নারী, শিশু ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা।

উল্লেখ্য, এর আগে ভুয়ো টিকাকাণ্ডে দেবাঞ্জনের সঙ্গে তৃণমূলের একাধিক নেতা-মন্ত্রীর ছবি নিয়ে সরব হয়েছিল বিজেপি। তাই এবার তার পাল্টা ছবি তুলে ধরল শাসকদলও। সেই জন্যই টুইটারে একটি ছবি পোস্ট করেছেন শশী পাঁজা। ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, একটি অনুষ্ঠান মঞ্চে ধৃত অধ্যক্ষের সঙ্গে বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদকে। পিছনে রয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টির ব্যানার। অনুষ্ঠানটি গেরুয়া শিবিরের বলেই মনে হচ্ছে। রাজ্যের মন্ত্রী লেখেন, ‘বঙ্গ বিজেপির জঘন্য কাহিনি আর শেষ হচ্ছে না। বাঁকুড়ার জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ শিশু পাচারের অভিযোগে অভিযুক্ত। তার সঙ্গে বিজেপি সাংসদের যোগ উদ্বেগজনক। বিজেপি কি এই ধরনের অপরাধীদের আশ্রয় দিচ্ছে?’

বাঁকুড়া-১ ব্লকের কালাপাথর এলাকায় রয়েছে এই জওহর নবোদয় বিদ্যালয়। এই স্কুলে নিয়মিত প্রচুর শিশু পড়তে আসে। কাজেই স্বাভাবিকভাবেই স্কুলের প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ সামনে আসায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়। ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। উল্লেখ্য, এই স্কুলটি কেন্দ্রীয় সাহায্যপ্রাপ্ত আবাসিক স্কুল। নিখরচায় পড়ুয়ারা এখানে থেকে পড়াশোনা করার সুযোগ পায়।

এদিকে, এই ঘটনা প্রসঙ্গে শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী বলেন, ‘এমনিতেই এ ঘটনা গুরুতর অপরাধ। তার উপর প্রিন্সিপ্যাল নিজে এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত! আমার সঙ্গে ইতিমধ্যেই জেলাশাসকের কথাও হয়েছে। জেলা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। বাচ্চাদের একটা হোমে রাখা হয়েছে। সমস্ত ব্যবস্থাই ওরা করছে। আমরাও নজর রাখছি।’