বেঁচে থাকার লড়াই! ২ বছরের সন্তানকে সঙ্গে নিয়েই কাজে বেরোচ্ছেন এই ডেলিভারি বয়! রইল ভিডিও

বেঁচে থাকার লড়াই! ২ বছরের সন্তানকে সঙ্গে নিয়েই কাজে বেরোচ্ছেন এই ডেলিভারি বয়! রইল ভিডিও / Image Source- Screengrab from Video Tweeted By @SCMPNews
বেঁচে থাকার লড়াই! ২ বছরের সন্তানকে সঙ্গে নিয়েই কাজে বেরোচ্ছেন এই ডেলিভারি বয়! রইল ভিডিও / Image Source- Screengrab from Video Tweeted By @SCMPNews

অভাবের সংসার! বেঁচে থাকার লড়াইয়ে গা ভাসিয়ে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই রোজ কাজে বেরিয়ে যান। কিন্তু ঘরে যে রয়েছে দুবছরের ছোট্ট কন্যাসন্তান। তার দেখাশোনা তবে কে করবে? অগত্যা কন্যাকে সঙ্গে নিয়েই কাজে বের হন বাবা। চিনের বেজিং শহরের বাসিন্দা লি এভাবেই যেন এক নজির গড়ে তুললেন।

লি পেশায় এক ডেলিভারি এক্সিকিউটিভ। বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষের ডেলিভারি পৌঁছে দেন তিনি। আর তাঁর সঙ্গে থাকে দু’বছরের শিশুটিও। মেয়ের বয়স যখন মাত্র ছয় মাস, তখন থেকেই বাইকে করে মেয়েকে নিয়ে কাজে বেরোন তিনি। প্রথম প্রথম অসুবিধা হলেও পরের ঠিক হয়ে সব। তাঁর সঙ্গে সর্বদা থাকে একটি ছোট্ট গদি, দুধ খাওয়ানোর বোতল ও ডায়াপার। একসঙ্গে দুজনে রোজ ডেলিভারি দিতে বের হন। আর এই কাজ করতে বেশ উপভোগও করেন লি।

ছোট্ট এক ভাড়া বাড়িতে অভাবের সংসার এই দম্পতির। তবে তাঁদের কথায়, অল্পেতেই তাঁরা বেশ খুশি। তাঁদের শুধু একটাই লক্ষ্য, নিজের মেয়েকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলা। তার জন্য যে কোনও ত্যাগ স্বীকার করতেও তাঁরা প্রস্তুত। সংসারের হাল ফেরাতে দুজনকেই কাজে বেরোতে হয়। তাই রোজকার কাজেও মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে যাওয়া ছাড়া উপায় নেই।

এই প্রসঙ্গে লি বলেন, ছোট্ট মেয়েকে নিয়ে কাজে বেরোনো খুব সুবিধের নয়। কিন্তু আর কোনও বিকল্প পথ নেই। তাঁরা স্বামী-স্ত্রী দু’জনেই বাইরে কাজ করেন। সকালে মেয়ের দেখাশোনার ভার যত লি-এর। রাতে মেয়ের যত্ন নেন তাঁর স্ত্রী। পাশাপাশি তিনি এও জানান, মেয়ে সঙ্গে থাকলেই সব ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। রোজকার কাজের জন্য নতুন করে উৎসাহ পান তিনি।

সম্প্রতিই South China Morning Post ট্যুইটারে শেয়ার করে লি-এর একটি ভিডিও। সেখানেই তাঁকে মেয়ের সঙ্গে কাজে ব্যস্ত অবস্থায় দেখা গিয়েছে৷ ভিডিওটি ইতিমধ্যেই বেশ ভাইরাল হয়ে উঠেছে নেটমাধ্যমে। ৮০,০০০-এর বেশি মানুষ তা দেখেও ফেলেছেন। পাশাপাশি লি-এর এই প্রচেষ্টাকে কুর্নিশও জানিয়েছেন নেটজনতা।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.