আট দফার ভোট ঘোষণা করে রাজ্যকে অপমান করেছে নির্বাচন কমিশন, ক্ষোভ মমতার

আট দফার ভোট ঘোষণা করে রাজ্যকে অপমান করেছে নির্বাচন কমিশন, ক্ষোভ মমতার
file image

পশ্চিমবঙ্গে আট দফার এই ভোট ঘোষণা করে রাজ্যকে অপমান করেছে নির্বাচন কমিশন। শুক্রবার সন্ধ্যায় এমন অভিযোগই জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, ‘বাংলাকে আমি খুব ভাল চিনি। আপনাদের সব চক্রান্ত ভেঙে দেব বাংলার মানুষ। কারণ বাংলার মানুষই বাংলা শাসন করবে। এই ঘোষণায় আমি দুঃখিত ও ব্যথিত।’ পাশাপাশি, বিশেষ পর্যবেক্ষক ও পুলিশ পর্যবেক্ষক নিয়েও মুখ্যমন্ত্রী কমিশনকে একহাত নিয়েছেন এদিন।

তৃণমূলের অভিযোগ, যত দিন যাচ্ছে, ততই বাড়ছে দফার সংখ্যা। ২০১১ সালে পরিবর্তনের বছর এই রাজ্যে ৬ দফায় নির্বাচন হয়েছিল। পরের বার অর্থাৎ ২০১৬তে এই নির্বাচন হয়েছিল সাত দফায়। আর এবার অর্থাৎ ২০২১-এ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন নজিরবিহীনভাবে হতে চলেছে ৮ দফায়। নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তের ফলে রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠেছে পশ্চিমবঙ্গের বিরুদ্ধে কি যুদ্ধ ঘোষণা করেছে কমিশন।

কালীঘাটে এদিন নিজের বাড়িতে সংক্ষিপ্ত সাংবাদিক সম্মেলনে মমতা কার্যত নিজের ক্ষোভ উগরে দেন। নজীরবিহীন ভাবে যেভাবে বাংলায় ৮ দফায় ভোট ঘোষণা করা হয়েছে তা নিয়েই প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে মমতা বলেন, ‘‘ভোটের দিনক্ষণ কী নরেন্দ্র মোদী আর অমিত শাহ ঠিক করে দিয়েছে? এটা লজ্জার যে কমিশন একটি রাজনৈতিক দলের দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছে। বাংলার সঙ্গে বাকি যে চারটি রাজ্যে ভোট হচ্ছে সেখানেও এত দফায় ভোট করানো হচ্ছে না। তাহলে শুধু বাংলার জন্য কেন ৮ দফায় ভোটগ্রহণ করা হবে?

তবে বিরোধীরা বিশেষ করে বিজেপির নেতারা কমিশনের ৮ দফার ভোটের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন। বাম ও কংগ্রেসের পক্ষ থেকেও কমিশনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানানো হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.