ভোট পর্বে খেলা হবে স্লোগানের পর, এবার ‘খেলা হবে’ দিবস পালনের ঘোষণা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের!

ভোট পর্বে খেলা হবে স্লোগানের পর, এবার ‘খেলা হবে’ দিবস পালনের ঘোষণা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের!
ভোট পর্বে খেলা হবে স্লোগানের পর, এবার ‘খেলা হবে’ দিবস পালনের ঘোষণা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের!

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ একুশের ভোটে তৃণমূল কংগ্রেসের স্লোগান ছিল ‘খেলা হবে’। এই স্লোগানকে সামনে রেখে, নেত্রী ভাঙা পায়ে ফুটবলকেও তাঁর বশ্যতা স্বীকার করিয়েছিলেন। বাংলায় একুশের বিধানসভা নির্বাচনে ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে সামনে রেখে ময়দানে নেমেছিল তৃণমূল কংগ্রেস।

তৃণমূলের যুব নেতা দেবাংশুর এই ‘খেলা হবে’ গানে জমে উঠেছিল একুশের বিধানসভা নির্বাচন। হুইল চেয়ারে বসে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে রাজনৈতিক মঞ্চে ভাষণ দেওয়ার সময় বারবার নেত্রীর মুখে উঠে এসেছে এই স্লোগান। শুধু নেত্রী নয়, তৃণমূলের প্রত্যেক নেতা-কর্মীর মুখেই এই স্লোগান শোনা গেছে।

‘খেলা’ হয়েছে। ‘খেলা’ শেষে ফলাফলে বিপুল ভোটে জিতে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর এবার মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিধানসভা কক্ষে দাঁড়িয়ে ঘোষণা করলেন যে, ‘আমরা খেলা হবে দিবস পালন করব। ওই দিন ৫০ হাজার ফুটবল বিতরণ করা হবে।’ তবে, কবে থেকে তা বাস্তবায়িত হবে তা পরে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উল্লেখ্য, তৃণমূলের গত ১০ বছরের জমানায় রাজ্যে নিত্যনতুন নানা দিবস পালন হয়ে আসছে। এবার সেই তালিকায় নয়া সংযোজন ‘খেলা হবে’ দিবস।

এদিকে নির্বাচনের আগে দেবাংশুর এই ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে কেন্দ্র করে সাড়া পড়েছিল গোটা বাংলায়। এবার সেই খেলা হবে স্লোগানকে কেন্দ্র করে খেলা হবে দিবস পালন উদ্যোগের ঘোষণায় সাড়া পড়ে গিয়েছে বিভিন্ন মহলে।

এদিন বিধানসভায় দাঁড়িয়ে, মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে, ‘তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মানুষকে অভিনন্দন। পুলিস সুপার, আইসি বদল থেকে পর্যবেক্ষক নিয়োগ- কি না করেছে! বাংলার মেরুদণ্ড ভাঙা যাবে না। শুধু মিথ্যে কথা বলা হচ্ছে। টাকা দিয়ে ভ্যাকসিন কিনেছি। ১০ বছরে বাংলাকে কোথায় নিয়ে এসেছি! কী ছিল বাংলা। ওরা বাংলাকে সম্মান দেয় না। বাংলার মানুষকে একবার নয় একশোবার স্যালুট করলেও কম হবে। খেলা হবে দিবস পালন করবে রাজ্য সরকার।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই ‘খেলা হবে’ স্লোগান আর বাংলার গণ্ডিতে সীমাবদ্ধ নেই। তা চলে গেছে উত্তরপ্রদেশে। সেখানে রাজ্যে বিজেপির বিরুদ্ধে ‘অব ইউপি মে খেলা হোই’ স্লোগান তুলে নির্বাচনের দামামা বাজিয়েছে অখিলেশ যাদবের দল সমাজবাদী পার্টি। এবার দেখার উত্তরপ্রদেশে এই স্লোগান সফল হয় কিনা।