‘আমিও ছটের ব্রত পালন করছি’, উদ্বোধনে গিয়ে ঠেকুয়া খাওয়ার আবদার করলেন মুখ্যমন্ত্রী!

‘আমিও ছটের ব্রত পালন করছি’, উদ্বোধনে গিয়ে ঠেকুয়া খাওয়ার আবদার করলেন মুখ্যমন্ত্রী!
‘আমিও ছটের ব্রত পালন করছি’, উদ্বোধনে গিয়ে ঠেকুয়া খাওয়ার আবদার করলেন মুখ্যমন্ত্রী!

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্ক: আজ ছটপুজো। এদিন ছটপুজোর উদ্বোধনে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বললেন, ‘আমিও ছটপুজোর ব্রত পালন করছি। গতকাল থেকে চা খেয়ে আছি।’ এদিন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে গিয়ে অবাঙালি বন্ধুদের কাছে ঠেকুয়া খাওয়ার আবদারও জানালেন তিনি। এভাবেই স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে মিশে গেলেন সাধারণের সঙ্গে।

বুধবার ভোর থেকেই রাজ্যজুড়ে পালিত হচ্ছে ছটপুজো। আজ সন্ধে এবং আগামিকাল সকালেও গঙ্গার বিভিন্ন ঘাটে সূর্যের পুজো হবে। যার জন্য কলকাতা-সহ রাজ্যের প্রায় প্রতিটি ঘাটেই পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি মানুষের সুবিধার্থে সবরকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এছাড়াও গঙ্গা দূষণ রুখতে কৃত্রিম জলাশয়ও তৈরি হয়েছে বিভিন্ন এলাকায়।

এদিন হেস্টিংস থেকে দইঘাট-একাধিক জায়গায় ছটপুজোর উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখানেই তিনি জানান, উপবাস রেখে এই পুজোর ব্রত তিনিও পালন করছেন। তিনি সকলকেই করোনাবিধি মেনে সকলকে পুজোয় শামিল হওয়ার পরামর্শও দেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, ‘দুর্গাপুজো, দিওয়ালির পর ছটপুজো এসে গিয়েছে। আর বাংলা কিন্তু ছটপুজোকে কম গুরুত্ব দেয় না। সেই জন্যই এবার দু’দিনের ছুটি দেওয়া হয়েছে। আগে একদিন দেওয়া হত। কিন্তু মহিলারা তিনদিন আগেই এই ব্রত পালন শুরু করে দেন। তাই সব দিক ভেবেই দু’দিন ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। আপনাদের বলব, কোভিডবিধি মেনে ঘাটে যান, পুজো দিন। এই দু’দিন নাইট কারফিউও তুলে দেওয়া হয়েছে। তাই তাড়াহুড়ো করবেন না। ধীরে-সুস্থে পুজো করুন।’

এরপরই পুলিশের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘পুলিশকেও বলব ঘাটে মাইকিং করুন। একসঙ্গে বেশি জমায়েত যাতে না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখবেন। যাতে কোনও দুর্ঘটনা না ঘটে, সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।’ এর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী জানান, তিনি ঠেকুয়া খেতে কতখানি ভালবাসেন। আবদারের সুরে বলেন, ‘আমার বাড়িতে ঠেকুয়া পাঠাবেন।’

অন্যদিকে, এদিন পুজোর উদ্বোধনী মঞ্চ থেকে অবশ্য কেন্দ্রকে তোপ দাগতেও ছাড়েননি তিনি। বিজেপিকে নিশানা করে বলেন, ‘তৃণমূল আচ্ছে দিনের স্বপ্ন দেখিয়ে জিনিসের দাম বাড়িয়ে লোককে বোকা বানায় না। বরং স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড চালু করে।’