আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্যপালের মন্তব্যের পাল্টা সরব কংগ্রেস, ধনকড়কে রাজভবনের “কলঙ্ক” বললেন তৃণমূল সাংসদ

আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্যপালের মন্তব্যের পাল্টা সরব কংগ্রেস, ধনকড়কে রাজভবনের
আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্যপালের মন্তব্যের পাল্টা সরব কংগ্রেস, ধনকড়কে রাজভবনের "কলঙ্ক" বললেন তৃণমূল সাংসদ

বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্যপাল। এবার তাঁর বক্তব্যের পাল্টা সরব হল কংগ্রেসও।

কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য এই প্রসঙ্গে বলেন, “যে কোন রাজ্যের রাজ্যপাল দিল্লিতে যেতে পারেন। দিল্লিতে গিয়ে স্বরাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে দেখা করতেই পারেন। এমনকি রাজ্যের রিপোর্ট দিতে পারেন। রিপোর্ট দেওয়ার আগে তার উচিত সংবিধান অনুযায়ী সেই রিপোর্টে কী আছে তা রাজ্যের মুখ্য সচিব স্বরাষ্ট্র সচিব ও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করা। এক্ষেত্রে সেই আলোচনা হয়েছে কিনা আমার জানা নেই।”

রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা ভাল নয় রাজ্যপালের এই দাবিকে সমর্থন জানিয়ে প্রদীপবাবু পাল্টা প্রশ্ন তুলে বলেন, রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার বিষয়ে সাংবিধানিকভাবে রাজ্যপালের বলার কতটা অধিকার রয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। রাজ্যপালের মতামত যেন কোনোভাবেই পক্ষপাত দুষ্ট না হয় সেদিকে অবশ্যই দেখতে হবে। রাজ্যপাল নিজের আয়ত্তের বাইরে গিয়ে যে মন্তব্য করেছেন তা সঠিক হয়নি।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। বৈঠকে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে অমিত শাহকে নালিশ জানিয়েছেন রাজ্যপাল। এমনকি এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে ভোট করা সম্ভব কিনা, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

বৈঠকের পর রাজ্যপাল জানান, পশ্চিমবঙ্গের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে অমিত শাহের সঙ্গে তিনি আলোচনা করেছেন। তিনি আরও বলেন, সরকারি আমলারা সরাসরিভাবে রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে কাজ করে চলেছেন, যেটা গণতন্ত্রের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক। এর ফলে গণতন্ত্র টিকে থাকবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। তাৎপর্যপূর্ণ এরপর টানা একমাস পাহাড়ে কাটাবেন রাজ্যপাল।

এদিকে রাজ্যপালের মন্তব্য প্রসঙ্গে পাল্টা ট্যুইট করেন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, জগদীপ ধনকড় রাজভবনের “কলঙ্ক”।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.