সপ্তাহের প্রথম দিনেই আরও কমল দেশে দৈনিক করোনার সংক্রমণ, কমেছে মৃত্যুর হারও

সপ্তাহের প্রথম দিনেই আরও কমল দেশে দৈনিক করোনার সংক্রমণ, কমেছে মৃত্যুর হারও
সপ্তাহের প্রথম দিনেই আরও কমল দেশে দৈনিক করোনার সংক্রমণ, কমেছে মৃত্যুর হারও / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কড়া বিধিনিষেধ জারি এবং লকডাউন জারির কারণে ক্রমশ উন্নতি হচ্ছে দেশের করোনা পরিস্থিতির। ধীরে ধীরে কমছে করোনার সংক্রমণ।

সপ্তাহের প্রথম দিনেই আরও কমল দেশে দৈনিক করোনার সংক্রমণ। কমেছে মৃত্যুর হারও। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৫২ হাজার ৭৩৪। রবিবারের থেকে এই সংখ্যাটা কম। রবিবার এই সংখ্যাটা ছিল ১ লক্ষ ৬৫ হাজারের বেশি। এ নিয়ে ভারতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ কোটি ৮০ লক্ষ ৪৭ হাজার ৫৩৪।

করোনার সংক্রমণ কমায়, তার প্রভাব পড়েছে সুস্থতার হার এবং করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যায়। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এই মুহূর্তে দেশে অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা ২০ লক্ষ ২৬ হাজার ৯২, যা রবিবারের চেয়ে প্রায় হাজার খানেক কম। প্রতিদিনই একটু একটু করে কমছে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ লক্ষ ৩৮ হাজার ২২ জন, এই সংখ্যা দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যার তুলনায় অনেকটাই বেশি। শতকরা হার ৯১.৬ শতাংশ। মারণ ভাইরাসের কবল থেকে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ২ কোটি ৫৬ লক্ষ ৯২ হাজার ৩৪২ জন।

তবে, এখনও দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা তিন হাজারের বেশি। এই পরিসংখ্যান এখনও চিন্তার বিষয়। একদিনে মৃত্যু হয়েছে ৩১২৮ জনের। এ পর্যন্ত করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৩ লক্ষ ২৯ হাজার ১০০ জন। ইতিমধ্যে দেশের ২১ কোটি ৩১ লক্ষ ৫৪ হাজার ১২৯ জনের টিকাকরণ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হয়েছে। তবে এই হার আরও ত্বরান্বিত করতে হবে বলে মত স্বাস্থ্যবিশেষজ্ঞদের।

করোনা দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব এখন প্রায় শেষের দিকে। এবার করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের জন্য তৈরি হচ্ছে দেশ। তার আগে কড়া বিধিনিষেধ এবং লকডাউন জারির মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে বিভিন্ন রাজ্য। দিল্লি, মহারাষ্ট্র, ওড়িশার মতো রাজ্যে জুনের মধ্যভাগ পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাতেও ১৫ জুন পর্যন্ত কড়া বিধিনিষেধ জারি থাকবে বলে ঘোষণা করা হয়েছে। সার্বিক বিচারে এই মুহূর্তে দেশের করোনা পরিস্থিতি তুলনামূলক উন্নতির দিকেই বলে মনে করছে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।