বঙ্গে লাগামছাড়া সংক্রমণ অব্যাহত! একদিনে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১৩ হাজার

বঙ্গে লাগামছাড়া সংক্রমণ অব্যাহত! একদিনে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১৩ হাজার
বঙ্গে লাগামছাড়া সংক্রমণ অব্যাহত! একদিনে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১৩ হাজার / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশজুড়ে ভয়ঙ্কর করোনা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। দেশজুড়ে বাড়ছে সংক্রমণ। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। প্রতিদিন সংক্রমণের নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হচ্ছে। সুস্থতার হারও বেশ কম। সংক্রমণ বাড়তে থাকায়, হাসপাতালে বেড পাওয়া যাচ্ছে না। এর পাশাপাশি অক্সিজেনের অভাব বড় সমস্যা এই মুহূর্তে দেশব্যাপী।

এদিকে ভোটের আবহে বাংলাতেও সংক্রমণ বাড়ছে। এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে মৃত্যুও। স্বাস্থ্যদপ্তরের নতুন পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় মারণ করোনা ভাইরাসে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন মোট ১২,৮৭৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৯ জনের। তুলনামূলকভাবে কমেছে সুস্থতার হার। মাত্র ৮৮.০১ শতাংশ সুস্থতার হার। বাংলায় সংক্রমণের নিরিখে শীর্ষে রয়েছে কলকাতা। এখানে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ২৮৩০। এরপরই দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনার। এখানে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ২৫৮৫। এর মধ্যে বিধাননগরেও বাড়ছে সংক্রমণ। রোগীদের সুরক্ষিত থাকতে ফের এখানকার সেফ হাউসগুলি খোলার পরিকল্পনা চলছে।

রাজ্যে এই মুহূর্তে চলছে বিধানসভা নির্বাচন। ইতিমধ্যেই ৬ দফা ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে, বাকি আছে আরও ২ দফা। এরই মাঝে সংক্রমণ মাত্রাতিরিক্ত হারে বাড়তে থাকায়, কোভিডবিধি আরও কড়া করেছে নির্বাচন কমিশন। সমস্ত রোড শো, মিছিল, সভা বাতিল হয়েছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলিও এই পরিস্থিতিতে এগিয়ে এসেছে। জনসভা বাতিল করে অনেকেই ভার্চুয়ালি প্রচার সারছেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও কিছুতেই যেন করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

স্বাস্থ্যদপ্তরের নয়া পরিসংখ্য়ান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ৫২,৬৪৬ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে করোনার। এর মধ্যে ৭.১০ শতাংশ রিপোর্টই পজিটিভ। এই মুহূর্তে রাজ্যে অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা ৭৪,৭৩৭।

দৈনিক সংক্রমণের হার রোজ নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করছে। যদিও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফে। এদিনই মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে রেখে টাস্ক ফোর্স তৈরি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁকে সাহায্যের জন্য গঠিত হয়েছে ওয়ার্কিং কমিটি।

বিভিন্ন হাসপাতালে কোভিড বেড বাড়ানো হয়েছে। অক্সিজেন সরবরাহ যাতে স্বাভাবিক থাকে, তার জন্য অন্য রাজ্যে অক্সিজেন পাঠানো আপাতত স্থগিত করতে চেয়ে, কেন্দ্রকে চিঠি লিখেছে রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তর। তবে, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সঙ্গে লড়াইয়ে কত দ্রুত জয়ী হবে বাংলা, সেই প্রশ্নের উত্তর রয়েছে সময়ের কাছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.