গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সামান্য কমলেও, ফের ঊর্ধ্বমুখী মৃতের সংখ্যা!

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সামান্য কমলেও, ফের ঊর্ধ্বমুখী মৃতের সংখ্যা!
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সামান্য কমলেও, ফের ঊর্ধ্বমুখী মৃতের সংখ্যা! / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেড় বছর কেটে গেলেও, দেশ এখনও করোনার কবল থেকে মুক্ত হতে পারেনি। তার মধ্যেই স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার চেষ্টা করছে দেশ। আর সেই লক্ষ্য পূরণের জন্য জোর দেওয়া হচ্ছে টিকাকরণের উপর। গত বুধবারই করোনার টিকার প্রক্রিয়াকে আরও সুগম এবং ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে ‘হর ঘর দস্তক’ প্রকল্পের সূচনা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। করোনার টিকার প্রক্রিয়াকে আরও সুগম এবং ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে বুধবার নতুন প্রকল্পের সূচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার ভ্যাকসিন দিয়ে আসবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। সেই কারণেই এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘হর ঘর দস্তক’।

এদিকে, উৎসবের মরশুমেও অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে দেশের করোনা সংক্রমণ। আলোর উৎসবের আগেই করোনার দৈনিক সংক্রমণ সামান্য বাড়লেও, ফের তা কমতে শুরু করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ফের কমেছে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা। পাশাপাশি কমেছে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা। যদিও ফের বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যা। যা নিয়ে উদ্বেগে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। তবে, সব মিলিয়ে নিয়ন্ত্রণে দেশের করোনা পরিস্থিতি।

রবিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৮৫৩ জন। এই সংখ্যাটা আগের দিনের থেকে সামান্য কম। গতকাল দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল করোনা ১০ হাজার ৯২৯ জন। দেশের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল প্রায় ৩ কোটি ৪৩ লক্ষ ৫৫ হাজার।

এদিকে, স্বাস্থ্যমন্ত্রকের নয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে মৃত্যুর সংখ্যা ফের অনেকটাই বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫২৬ জনের। যা আগের দিনের থেকে অনেকটাই বেশি। গতকাল দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৯২ জনের। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনার বলি ৪ লক্ষ ৬০ হাজার ৭৯১ জন।

সংক্রমণ কমার পাশাপাশি গত ২৪ ঘণ্টায় অ্যাকটিভ কেস আরও খানিকটা কমেছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, বর্তমানে দেশে করোনায় চিকিৎসাধীন রোগী ১ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮৪৫ জন। যা কিনা গত ২৬০ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন এবং মোট আক্রান্তের মাত্র ০.৪৬ শতাংশ। গতকাল অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ৪৬ হাজার ৯৫০ জন। যদিও দীর্ঘদিন বাদে অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা নেমে এসেছে দেড় লক্ষের নিচে। গত বুধবারই দেশে অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ৫১ হাজার ২০৯ জন। এই পরিসংখ্যানে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। প্রতিদিনই একটু একটু করে কমছে সংখ্যাটা। অন্যদিকে, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আশার আলো যোগাচ্ছেন করোনাজয়ীরাই। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হয়ে উঠেছেন এখনও পর্যন্ত দেশে ৩ কোটি ৩৭ লক্ষ ৪৯ হাজার ৯৯০ জন করোনা থেকে মুক্ত হয়েছেন। যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ১২ হাজার ৪৩২ জন। যা দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যার তুলনায় অনেকটাই বেশি। এই মুহূর্তে দেশের দৈনিক পজিটিভিটি রেট ১.১৮ শতাংশ।

করোনার মোকাবিলায় টিকাকরণকেই প্রধান হাতিয়ার করা হয়েছে। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য এখনও পর্যন্ত দেশে মোট ১০৮ কোটি ২১ লক্ষ ৬৬ হাজার ৩৬৫ ডোজ করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল অর্থাৎ ভাইফোঁটার দিন ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে মাত্র ২৮ লক্ষ ৪০ হাজার মানুষকে। টিকাকরণের পাশাপাশি আগের মতোই চলছে টেস্টিংও।