ভয়াবহ! দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লক্ষের কাছাকাছি! রেকর্ড গড়েছে মৃত্যুর সংখ্যাও

ভয়াবহ! দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লক্ষের কাছাকাছি! রেকর্ড গড়েছে মৃত্যুর সংখ্যাও
ভয়াবহ! দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লক্ষের কাছাকাছি! রেকর্ড গড়েছে মৃত্যুর সংখ্যাও / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ এককথায় ভয়ানক! ক্রমশ আতঙ্কের ঘন কালো মেঘ আরও ঘনীভূত হচ্ছে। ভয়াবহতার সব মাত্রা ধীরে ধীরে অতিক্রম করছে মারণ করোনা। দেশব্যাপী করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাজেহাল সাধারণ মানুষ থেকে প্রশাসনের। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪৫ হাজার। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যুর সংখ্যাও রেকর্ড গড়েছে। এর পাশাপাশি বাড়ছে অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যাও।

শনিবার, অর্থাৎ আজ সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১ লক্ষ ৪৫ হাজার ৩৮৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। যা আগের দিনের থেকে প্রায় ১৪ হাজার বেশি। এর জেরে এই মুহূর্তে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৩২ লক্ষ ৫ হাজার ৯২৬ জন।

আমেরিকার পর ভারত এখন দ্বিতীয় দেশ, যেখানে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ পেরিয়েছে। বর্তমানে আমেরিকার থেকে ভারতে অনেক বেশি দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস৷ পরিস্থিতি ক্রমশই ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে৷ গত বছরের তুলনায় এ বছর আরও ভয়ঙ্কর রুপ নিয়েছে করোনা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেশের দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাকেও বাড়িয়ে দিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৭৯৪ জনের। এই সংখ্যা চলতি বছরে সর্বাধিক। এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১লক্ষ ৬৮ হাজার ৪৩৬ জনের।

পাশাপাশি করোনা থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৭ হাজার ৫৬৭ জন। দেশে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ১৯ লক্ষ ৯০ জাহার ৮৫৯ জন। অন্যদিকে দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে ৯ কোটি ৮০ লক্ষ ৭৫ হাজার ১৬০ জনকে। দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্র, গুজরাত, পঞ্জাব এবং কর্ণাটকের দৈনিক সংক্রমণ সবথেকে বেশি।

দেশব্যাপী করোনার এই বাড়বাড়ন্ত ক্রমশ প্রশাসনের চিন্তা আরও বাড়িয়ে তুলছে। এই পরিস্থিতিতে ৫ রাজ্যে চলছে বিধানসভা নির্বাচন। আর এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সভা, মিটিং, মিছিলে প্রচুর মানুষের জমায়েত এবং তাতে যথেচ্ছভাবে করোনাবিধি সংক্রমণের আশঙ্কাকে আরও বাড়িয়ে তুলছে। দেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি রাজ্যে নাইট কার্ফু বা সপ্তাহান্তে লকডাউন করা হলেও, কেন্দ্র এখনই সম্পূর্ণ লকডাউনের রাস্তায় যেতে চাইছে না বলেই সূত্রের খবর। বরং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজ্যগুলিকে মাইক্রো কন্টেনমেন্ট জোনের মাধ্যমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পরামর্শ দিয়েছেন। পাশাপাশি করোনার পরীক্ষা এবং টিকাকরণের উপর বিশেষ জোর দিয়েছেন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.