উৎসবের মুখে ফের অনেকটাই বাড়ল দেশের করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা! স্বস্তি মিলেছে অ্যাকটিভ কেসে

উৎসবের মুখে ফের অনেকটাই বাড়ল দেশের করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা! স্বস্তি মিলেছে অ্যাকটিভ কেসে
উৎসবের মুখে ফের অনেকটাই বাড়ল দেশের করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা! স্বস্তি মিলেছে অ্যাকটিভ কেসে / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আগে, দেশে করোনা গ্রাফে ওঠানামা অব্যাহত রয়েছে। প্রতিদিন একটু একটু করে বাড়ছে সংক্রমণ, আবার কখনও তা কমছে। এরই মধ্যে আবার সামনেই করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এদিকে, উৎসবের মরশুমে করোনা নিয়ে বিশেষ সতর্ক কেন্দ্রের মোদী সরকার। তাই সংক্রমণ ঠেকাতে জোর দেওয়া হচ্ছে করোনাবিধিতে। পাশাপাশি গতি বাড়ানো হচ্ছে টিকাকরণের উপর। তবে, উৎসবের মুখে দেশের করোনা গ্রাফে স্বস্তি মিলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার দৈনিক সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা ফের অনেকটাই বাড়ল। তবে অনেকটাই কমেছে করোনার অ্যাকটিভ কেস। যা স্বাস্থ্যমন্ত্রককে স্বস্তি দিচ্ছে।

বুধবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২২ হাজার ৪৩১ জন। গতকালের থেকে সংক্রমণ অনেকটাই বেশি। গতকাল দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৮ হাজার ৮৩৩ জন। এই মুহূর্তে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৩৮ লক্ষ ৯৪ হাজার ৩১২ জন।

এদিকে, স্বাস্থ্যমন্ত্রকের নয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টা করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩১৮ জনের। দীর্ঘদিন বাদে একদিনের মৃতের সংখ্যা তিনশোর গণ্ডি পেরল। যা নতুন করে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনার বলি ৪ লক্ষ ৪৯ হাজার ৮৫৬ জন।

অন্যদিকে, স্বস্তি দিয়েছে করোনার অ্যাকটিভ কেসে। দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়লেও গত ২৪ ঘণ্টায় স্বস্তি দিয়েছে করোনার অ্যাকটিভ কেস। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, বর্তমানে দেশে করোনায় চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ২ লক্ষ ৪৪ হাজার ১৯৮ জন। যা গত কয়েক মাসে সবথেকে কম। এদিকে, করোনার বিরুদ্ধে আশার আলো দেখাচ্ছেন করোনাজয়ীরাই। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার কবল থেকে সুস্থ হয়েছেন ২৪ হাজার ৬০২ জন। যা দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যার থেকে অনেকটাই বেশি। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত দেশে ৩ কোটি ৩২ লক্ষ ২৫৮ জন করোনা থেকে মুক্ত হয়েছেন।

টিকাকরণের গতি বাড়িয়ে সংক্রমণ ঠেকানোর প্রয়াস জারি রয়েছে দেশজুড়ে। তৃতীয় ঢেউ রুখতে পরীক্ষানিরীক্ষার মাধ্যমে করোনা রোগীদের চিহ্নিত করার পাশাপাশি টিককরণেও জোর দিয়েছে কেন্দ্র। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত দেশে মোট ৯২ কোটি ৬৩ লক্ষ ৬৮ হাজার ৬০৮ জন মানুষ করোনার টিকা পেয়েছেন। এর মধ্যে গতকালই টিকা পেয়েছেন প্রায় ৪৩ লক্ষ ৯ হাজার ৫২৫ জন নাগরিক।

আশা করা হচ্ছে, এই গতিতে টিকাকরণের কাজ চললে, চলতি বছরের মধ্যে দেশের সমস্ত মানুষকে টিকাকরণের লক্ষ্যমাত্রা সময়ের মধ্যেই পূরণ হয়ে যাবে বলে আশাবাদী কেন্দ্র সরকার। এদিকে, আগামী সপ্তাহের শুরু থেকেই দেশে উৎসবের মরশুম শুরু হয়ে যাবে। গত বছরের মতো এবারও মেনে চলতে হবে কঠোর করোনাবিধি। কিন্তু তার আগে দেশের করোনা এই গ্রাফ চিন্তায় ফেলেছে স্বাস্থ্যমহলকে।