চোখ রাঙাচ্ছে মারণ করোনা! দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ ছুঁইছুঁই

চোখ রাঙাচ্ছে মারণ করোনা! দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ ছুঁইছুঁই
চোখ রাঙাচ্ছে মারণ করোনা! দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ ছুঁইছুঁই / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশব্যাপী ভয়াবহ আকার নিয়েছে মারণ করোনা। প্রতিদিন ঝড়ের গতিতে বাড়ছে সংক্রমণ। প্রতিদিন সংক্রমণের নয়া রেকর্ড তৈরি হচ্ছে। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। প্রতিদিন ভয়ঙ্কর দুঃস্বপ্নের মতো তাড়া করে বেড়াচ্ছে মারণ করোনা। এই মুহূর্তে দেশজুড়ে যা করোনা পরিস্থিতি, তাতে ভয়ঙ্কর, উদ্বেগজনক ইত্যাদি কোনও বিশেষণই যথেষ্ট নয়।

দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে বিশ্ব রেকর্ডের ধারা জারি রয়েছে দেশে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে রূপ পরিবর্তন করে, আরও ভয়ানক চেহারা নিয়েছে মারণ করোনা। সর্বকালীন রেকর্ড গড়ছে দৈনিক সংক্রমণ। গত বছর যখন করোনা সংক্রমণ সবথেকে বেশি ছিল। তখনও এই এত সংখ্যায় সংক্রমণ হয়নি।

দেশের করোনা পরিস্থিতি এতোটাই ভয়াবহ যে, আমেরিকাকেও সেই ভয়াবহতা ছাপিয়ে যাচ্ছে। আর প্রায় ভেঙে পড়েছে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। লাগাতার তিনদিনে দেশে ৩ লক্ষের বেশি মানুষ এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেণ। শনিবার এই সংখ্যাটা প্রায় সাড়ে তিন লক্ষের কাছাকাছি পৌঁছে গেল। শনিবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৪৬ হাজার ৭৮৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যা আগের দিনের থেকে প্রায় ১৪ হাজার বেশি। এই সংখ্যাটা দেশের তো বটেই গোটা বিশ্বের সর্বকালের সর্বোচ্চ।

আপাতত দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৬৬ লক্ষ ১০ হাজার ৪৮১ জন। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আপাতত মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ৮৯ হাজার ৫৪৪ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৬২৪ জনের। এই সংখ্যাটাও আগের দিনের থেকে অনেকটা বেশি।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনামুক্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৩৮ জন। যা দৈনিক আক্রান্তের থেকে অনেক অনেক কম। যার ফলে দেশের মোট অ্যাকটিভ কেস বেড়ে দাঁড়াল ২৫ লক্ষ ৫২ হাজার ৯৪০ জন। দেশে এখনও পর্যন্ত সবমিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৩৮ লক্ষ ৬৭ হাজার ৯৯৭ জন। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট টিকা পেয়েছেন ১৩ কোটি ৮৩ লক্ষ ৭৯ হাজার ৮৩২ জন।

করোনার সংক্রমণ ঝড়ের গতিতে বাড়তে থাকায়, ইতিমধ্যেই দেশব্যাপী নানা সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। একাধিক রাজ্যে শুরু হয়েছে সাপ্তাহিক লকডাউন।