পুরভোট কি পিছবে? ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে জল্পনা

পুরভোট কি পিছবে? ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে জল্পনা
পুরভোট কি পিছবে? ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে জল্পনা/ প্রতীকী ছবি

চার থেকে ছয় সপ্তাহ ভোট পিছিয়ে দেওয়ার বিষয়ে কমিশনকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে বলেছে আদালত। এবার আরও দু সপ্তাহ ভোট পিছিয়ে দেওয়ার জন্য এবার কমিশনকে আর্জি জানালো রাজ্য। এমনটাই খবর নবান্ন সূত্রে। তাই সেক্ষেত্রে আদালতের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী মনে করা হচ্ছে পিছিয়ে যেতে পারে রাজ্যের চার পুরসভার বকেয়া ভোট।

শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্ট জানিয়েছে,এই পরিস্থিতিতে ৪ থেকে ৬ সপ্তাহ ভোট পিছনো যায় কিনা সেই বিষয়ে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কমিশনকে সিদ্ধান্ত জানাবে কমিশন। এছাড়াও কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে সমস্ত তথ্য কমিশনে জমা দিতে হবে। সেই তথ্য খতিয়ে দেখে রাজ্য নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে ৪ থেকে ৬ সপ্তাহ ভোট পিছনো যায় কিনা সেই বিষয়ে। পাশাপাশি ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই সেই রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে কমিশনকে।

এদিকে কমিশন সূত্রে খবর, শনিবার বিকেলে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের সঙ্গে বৈঠকে বসবে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। এ রাজ্যে কোভিড পরিস্থিতির নিরিখে আগামী ২২ তারিখ ভোট করানো আদৌ যুক্তিযুক্ত কি না, তা নিয়ে এই বৈঠকে আলোচনা হবে। এই বৈঠক হবে ভার্চুয়ালি। বৈঠকের পরেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে কমিশন আগামী ২২ তারিখ পুরভোট করানো যাবে কিনা সেই বিষয়ে।

তবে শুধু বিপর্যয় দফতর নয় হাইকোর্টের রায়ের পর, আগামিকাল শনিবার মুখ্যসচিবের হরেকৃষ্ণ দ্বিবেদীর সঙ্গেও ভার্চুয়ালি বৈঠকে বসছেন নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাস। সেই বৈঠকে পরেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। যদিও হাইকোর্টে পরামর্শ মেনে ৪ পুরনিগমে ভোট পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাই জোড়ালো হচ্ছে ক্রমশ।