৪ বছরের শিশুকন্যাকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে বৃদ্ধ দম্পতির ১০ বছর কারাদণ্ডের নির্দেশ বিশেষ আদালতের

৪ বছরের শিশুকন্যাকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে বৃদ্ধ দম্পতির ১০ বছর কারাদণ্ডের নির্দেশ বিশেষ আদালতের
৪ বছরের শিশুকন্যাকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে বৃদ্ধ দম্পতির ১০ বছর কারাদণ্ডের নির্দেশ বিশেষ আদালতের / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ ২০১৩ সালের, মহারাষ্ট্রের ঘটনা। ছোট্ট ৪ বছরের শিশুকন্যা। পাশের বাড়ির বৃদ্ধ দম্পতিকে নিজের দাদু-দিদার মতো ভালবাসত। বিশ্বাস করত, শুধু সেই নয়, ওই শিশুকন্যার বাবা-মাও তাঁদের উপর অসম্ভব ভরসা করতেন। আর ভরসা করতেন বলেই, ছোট্ট মেয়েকে তাঁদের মেয়েকে রেখে, নিশ্চিন্তে কাজে যেতেন।

কিন্তু ওই আশি ঊর্ধ্ব দম্পতি তাঁদের সেই বিশ্বাসের মর্যাদা রাখেনি। সেই বিশ্বাস এবং ভরসার সুযোগ নিয়ে, একদিন ওই শিশুকন্যার উপর যৌন নির্যাতন চালায়। সেই অপরাধের জন্য তাঁদের ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিল বিশেষ আদালত।

Protection of Children from Sexual Offences Act (POCSO) আদালতের বিচারক রেখা এন পানধারে জানিয়েছেন যে, অভিযুক্ত বৃদ্ধ দম্পতিকে দাদু-দিদা বলেই জানত এবং মানত ওই শিশুটি। তাদের কাছে মেয়েকে রেখে কাজে বের হতেন শিশুটির মা-বাবা। সেই সুযোগেই নিজের বিকৃত যৌন লালসা মেটায় অভিযুক্ত বৃদ্ধ দম্পতি। বয়ানে নির্যাতিতা জানিয়েছে যে, ২০১৩ সালের ৪ সেপ্টেম্বর স্কুল থেকে ফিরে, নিজের বাড়িতে কার্টুন দেখছিল সে। বিকেলবেলায় নিজেদের আবাসনের ৪ তলায় খেলতে যায় সে। কিন্তু তার বন্ধু তখন ঘুমোচ্ছিল, তাই সে তখনকার মতো নিজের ফ্ল্যাটেই ফিরে আসে।

তার অভিযোগ এরপরই অভিযুক্ত ‘দাদু-দিদা’ তাকে ফোন করে ডেকে পাঠায়। তাদের ডাকে সেখানে গেলে, অভিযুক্ত বৃদ্ধ (৮৭) তাকে বাড়ির ভিতরে নিয়ে গিয়ে, কোলে বসিয়ে দোল খাওয়াতে থাকে। যখন সে পালিয়ে যেতে চায়, তখন তাকে মারা হয়। এরপর বৃদ্ধ মহিলা (৮১) তাকে জোর করে চেপে ধরে আর তার বৃদ্ধ স্বামী তাকে নগ্ন করে, তার উপর যৌন নির্যাতন চালায়। সঙ্গে তাকে মারধরও করা হয়, মুখে থুতু ছেটানো হয়। এমনকি ওই মহিলাও তার উপর যৌন নির্যাতন করে। এরপর কোনও রকমে সে পালিয়ে আসে সেখান থেকে।

নির্যাতিতার মা তার বয়ানে আদালতের কাছে জানিয়েছেন, ওইদিন রাতে ১০ টা নাগাদ ঘুমানোর সময় মেয়ে তাকে গোটা ঘটনার কথা খুলে বলে। মহিলা নিজেও দেখেন যে, মেয়ের গোপনাঙ্গ দগদগ ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে স্বামীকে পুরো বিষয়টি জানান এবং তাঁরা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই বৃদ্ধ দম্পতির বিরুদ্ধে। ঠিক তার পরের দিনই ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.