“আমি মরলে সুখী হবি? তোরও করোনা হোক!” বউমা জড়িয়ে ধরে বললেন কোভিড আক্রান্ত শাশুড়ি!

"আমি মরলে সুখী হবি? তোরও করোনা হোক!" বউমা জড়িয়ে ধরে বললেন কোভিড আক্রান্ত শাশুড়ি! / প্রতীকী ছবি

শাশুড়ি করোনা আক্রান্ত। তাই বাড়িতে নিভৃতবাসে ঠাঁই হয়েছে। তাঁর থেকে সামাজিক দূরত্বও বজায় রাখছিলেন পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। ছেলে, বউমা থেকে নাতি-নাতনি কেউই ওই মহিলার কাছাকাছি যাচ্ছিলেন না। কিন্তু এই দূরত্ব সহ্য হয়নি শাশুড়ির৷ একা একা ঘরে থাকতে থাকতে স্বাভাবিকভাবেই মুষড়ে পড়েছিলেন তিনি। তাঁই ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে একদিন সটান বউমাকেই জড়িয়ে জাপটে ধরলেন। বললেন, “আমি মরে গেলে তোরা সুখী হবি? তোরও করোনা হোক।”

ঘটনাটি ঘটেছে তেলঙ্গানার রাজন্যা সিরিসিলা জেলার থিমাপুর গ্রামে। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। শাশুড়ির বিরুদ্ধে বউমার অভিযোগ, ক্ষোভের বশেই এই কাজ করেছেন তিনি। ২০ বছরের ওই বউমা জানিয়েছেন, কয়েক দিন আগে কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর থেকেই শাশুড়ির থেকে দূরত্ব বাজায় রাখতে শুরু করেন তাঁরা। কিন্তু শাশুড়ির তা পছন্দ হয়নি। তার ফলেই এই কাণ্ড ঘটালেন তিনি।

বউমা আরও জানান, শাশুড়ি তাঁকে বলেছেন, “আমি মরে গেলে তোরা সুখী হবি? তোকেও যেন ভাইরাসে ধরে। তোরও করোনা হোক।” এছাড়াও বহুবার নিষেধ করা সত্ত্বেও তাঁর সন্তানদের জোর করে আদর করেছেন শাশুড়ি। তা নিয়ে বেশ দুঃশ্চিন্তাতেই দিন কাটছে তাঁদের। এরপর বউমার দাবী, বাড়িতে তাঁকে আলাদা রাখায় অপমানিত বোধ করেন শাশুড়ি। যা থেকেই মনে মনে জমা ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন তিনি।

এই ঘটনার পরই বাধ্য হয়েই শ্বশুরবাড়ি ত্যাগ করেছেন বউমা এবং তাঁর সন্তান। তবে কয়েকদিন পরই পরীক্ষা করে জানা গিয়েছে, করোনা পজিটিভ হয়েছেন বউমাও। আপাতত থিমাপুর গ্রামে বোনের বাড়িতেই আশ্রয় নিয়েছেন তিনি। স্থানীয় স্বাস্থ্য আধিকারিকরা জানিয়েছেন, সম্প্রতি কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই সমস্যা শুরু হয়েছে ওই পরিবারে। তার জেরেই ঘটেছে এই কাণ্ড।