করোনা রুখতে ভারতীয় রেল নিল একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত! কী কী?

করোনা রুখতে ভারতীয় রেল নিল একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত! কী কী?
করোনা রুখতে ভারতীয় রেল নিল একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত! কী কী?

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ বেশ ভালোমতোই থাবা বসাতে শুরু করেছে সারা দেশে। টিকাকরণ পদ্ধতি চালু থাকলেও বেশ কিছু রাজ্যে লাফ দিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। ভারতে ইতিমধ্যেই মোট আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ কোটির কাছাকাছি। সক্রিয়ের সংখ্যাও ক্রমশ বৃদ্ধির পথে। গবেষকদের মতে, এই দ্বিতীয় স্ট্রেন নাকি আরও ভয়ানক! আর এই ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের ফলে ঘাটতি দেখা দিয়েছে অক্সিজেন এবং হাসপাতালের বেডের ক্ষেত্রেও। এমতাবস্থায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে তাই একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল ভারতীয় রেল।

মহামারী নিয়ন্ত্রণে আনতে ভারতীয় রেলে তরফে এবার চালু করা হচ্ছে ‘অক্সিজেন এক্সপ্রেস’ ট্রেন। এই ট্রেনের মাধ্যমে একসঙ্গে একাধিক অক্সিজেন সরবরাহ করা যাবে৷ এমনকি অনেক দ্রুতও অক্সিজেন পাবেন রোগীরা। এছাড়াও এই ট্রেনগুলি যাতে দ্রুত পৌঁছতে পারে তার জন্য গ্রিন করিডোরেরও ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সম্প্রতি  কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীয়ূষ গোয়েল টুইটারের মাধ্যমে জানিয়েছেন এই কথা।

সম্প্রতি টুইটারে রেলমন্ত্রী লেখেন, “কোভিড ১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াই জারি রাখতে কোনও ফাঁক রাখছে না ভারতীয় রেল। এবার অক্সিজেন এক্সপ্রেস ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যেখানে গ্রিন করিডোরের মাধ্যমে রোগীদের কাছে অক্সিজেন পৌঁছে যাবে।” জানা গিয়েছে, এই ট্রেনগুলির মাধ্যমে অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন ও অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করা হবে। কারণ, করোনা কালীন পরিস্থিতিতে এখন সবচেয়ে জরুরি বিষয় হল, অক্সিজেনই।

এখানেই শেষ নয়! আরেকটি পোস্টে রেলমন্ত্রী জানান, দেশের বিভিন্ন রাজ্যের চাহিদার ভিত্তিতে ট্রেনের মধ্যেই আইসোলেশন বেডের ব্যবস্থা করছে সরকার। আপাতত বিভিন্ন রাজ্যের ট্রেনে মোট ৩ লক্ষ আইসোলেশন বেডের ব্যবস্থা করা সম্ভব করে তোলা হচ্ছে৷ পাশাপাশি রেলমন্ত্রী এও জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই শকুর বস্তি স্টেশনে ৫০টি আইসোলেশন কামরায় মোট ৮০০টি বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও দিল্লির আনন্দ বিহার স্টেশনে ২৫টি কোচেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ক্রমবর্ধমান করোনার গ্রাফের ওপর নজর রেখে নতুন করে কোভিড বিধি জারি করেছে ভারতীয় রেল। স্বাস্থ্যবিধির দিকে খেয়াল রেখে ইতিমধ্যেই ট্রেনে রান্না করা খাবার সরবরাহ করাও বন্ধ করা হয়েছে। রেল বোর্ডের সভাপতি সুনীত শর্মা জানিয়েছেন, বর্তমানে রেলযাত্রা করার জন্য কোভিড নেগেটিভ সার্টিফিকেটের দরকার নেই। তবে কেন্দ্রীয় সরকার ও সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারের কোভিড বিধি অবশ্যই মেনে চলতে হবে। এছাড়াও বিভিন্ন স্টেশনে স্টেশনে মাস্ক, স্যানিটাইজার এবং গ্লাভস ইত্যাদি বিক্রির স্টলও দেওয়া হচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.