তৃতীয় পর্যায়ের টিকাকরণের শুরুতেই ভারতে এল রাশিয়ায় ভ্যাকসিন Sputnik V!

তৃতীয় পর্যায়ের টিকাকরণের শুরুতেই ভারতে এল রাশিয়ায় ভ্যাকসিন Sputnik V!
তৃতীয় পর্যায়ের টিকাকরণের শুরুতেই ভারতে এল রাশিয়ায় ভ্যাকসিন Sputnik V!

করোনা আতঙ্ক কাটাতে দেশজুড়ে জারি রয়েছে টিকাকরণ প্রক্রিয়া। ছড়িয়ে পড়া করোনার প্রকোপ রুখতে ইতিমধ্যেই প্রায় ২৪ লক্ষ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের টিকাকরণে মধ্যেই দিন কয়েক আগে কেন্দ্র ঘোষণা করে, ১ মে থেকেই ১৮ ঊর্ধ্বদের টিকাকরণ শুরু হবে। অর্থাৎ মে মাসের শুরু থেকেই তৃতীয় পর্যায়ের টিকাকরণে দেশের ১৮ বছরের বেশি বয়সী সমস্ত নাগরিকরা টিকা নিতে পারবেন। এবার সেই টিকাকরণ কর্মসূচির গতি আরও বাড়াতে ভারতে এল রাশিয়ান ভ্যাকসিন। Sputnik V নামে ওই ভ্যাকসিন ভারতে আসায় টিকাকরণের গতি আরও বাড়তে চলেছে বলে দাবি বিদেশমন্ত্রকের।

ইতিমধ্যেই দেশে এসে গিয়েছে প্রথম দফার স্পুটনিক ভি টিকা। রাশিয়ায় তৈরি এই ভ্যাকসিনের আপাতত দেড় লক্ষ ডোজ এসে পৌঁছেছে হায়দ্রাবাদে। চলতি মাসে করোনার মোট ৩ টিকা ভারতে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। ভারতীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রে খবর, জুনের মধ্যে ভারতে স্পুটনিক ভি-র ৫০ লক্ষ টিকা চলে আসার কথা রয়েছে। জুলাইয়ের মধ্যেই আরও ১ কোটি ডোজ পাঠাবে রাশিয়া।

এই প্রসঙ্গে বিদেশমন্ত্রক বিবৃতি দিয়েছে, অতিমারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতের পাশে রয়েছে রাশিয়া। এই তৃতীয় বিকল্প টিকা আসায় টিকাকরণ কর্মসূচির গতি আরও বাড়তে চলেছে। অন্যদিকে ভারতের রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত এন কুদাসেভের বক্তব্য, কার্যক্ষমতায় বিশ্বের অন্যতম সেরা টিকা হচ্ছে স্পুটনিক ভি। করোনাভাইরাসের নতুন প্রজাতির বিরুদ্ধে লড়াই করতেও সক্ষম তা৷ শীঘ্রই স্থানীয়স্তরে উৎপাদন শুরু হবে এবং ধীরে ধীরে বছর প্রতি ৮৫০ মিলিয়ন ডোজে উৎপাদন ক্ষমতা নিয়ে যাওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৮ এপ্রিল রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একটি বৈঠকে বসেন৷ তারপরই ভারতের দিকে রাশিয়া সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বলে খবর। অনেকেই মনে করছেন করোনার বিরুদ্ধে লড়তে ফাইজার ও মডার্নার টিকার চেয়ে স্পুটনিক ভি-র কার্যকারিতা ৯০ শতাংশ বেশি। সেই কারণেই ভারতে ওই টিকার আমদানি করা হয়েছে।