সস্ত্রীক আক্রান্ত রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য

সস্ত্রীক আক্রান্ত রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য
সস্ত্রীক আক্রান্ত রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য

এবার করোনা থাবা বসালো রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য এবং তাঁর স্ত্রী মীরা ভট্টাচার্যর দেহে। বুদ্ধদেব বাবু বাড়িতে থাকলেও হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে তাঁর স্ত্রী মীরাদেবীকে। মঙ্গলবার রাতেই উডল্যান্ডস হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে।

পরিবার সূত্রে খবর, বেশ কিছুদিন ধরেই করোনা উপসর্গ ছিল মীরা দেবীর। এরপরেই তাঁর পরীক্ষা করা হলে সেই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এদিকে মীরা দেবীর করোনা পরীক্ষা করার পাশাপাশি বুদ্ধ বাবুরও টেস্ট করানো হয়। দেখা যায় তিনিও করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। এদিকে মঙ্গলবার রাতেই মীরা দেবীর শ্বাসকষ্ট হতে শুরু করলে রাতেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, চিকিৎসক কৌশিক চক্রবর্তী এবং ধ্রুব ভট্টাচার্য রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর স্ত্রীর চিকিৎসা করছেন। রাতের দেওয়া বুলেটিন অনুযায়ী, ৭১ বছর বয়সী মীরা দেবীর শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। তাঁর শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা ৯৫-৯৬শতাংশ।

অন্যদিকে, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যও দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ। সব সময় পোর্টেবল অক্সিজেন সিলিন্ডারের নল লাগানো থাকে তাঁর। তাই এক্ষেত্রে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সংক্রমনের আশঙ্কা খুব বেশি থাকছে বলে জানানো হয়েছে। বেশ কয়েক মাস আগে দুবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে। তবে খানিকটা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে আসার জেদ ধরেন তিনি। সেই মত ফিরে এসে বাড়িতেই সমস্ত চিকিৎসা চলছে তাঁর।

প্রসঙ্গত, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর শ্বাসজনিত সমস্যা থাকায় তাঁকে এবার ভোট দিতে যেতেও বারণ করেছিলেন চিকিৎসকরা। এমনকি বামেদের ব্রিগেডে সমাবেশে উপস্থিত থাকতে পারেননি তিনি। তবে সেখানে সশরীরে উপস্থিত থাকতে না পারলেও ভিডিও বার্তার মাধ্যমে নিজের বক্তব্য পেশ করেছিলেন বুদ্ধবাবু।