সপ্তাহে একদিনের বদলে তিনদিন ছুটি আর চারদিন কাজ! এমনই বদল এনে নজির গড়ল ভারতের এই সংস্থা

সপ্তাহে একদিনের বদলে তিনদিন ছুটি আর চারদিন কাজ! এমনই বদল এনে নজির গড়ল ভারতের এই সংস্থা
সপ্তাহে একদিনের বদলে তিনদিন ছুটি আর চারদিন কাজ! এমনই বদল এনে নজির গড়ল ভারতের এই সংস্থা / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কী শুনে অবাক হচ্ছেন তো? ভাবছেন তো এমনটাও হয় নাকি! হ্যাঁ হয়, ভারতের এক সংস্থা সম্প্রতি এমনই নিয়ম চালু করেছে, সেই সংস্থার কর্মচারীদের জন্য। সত্যিই দারুণ না!

এমনিতেই করোনা অতিমারির কারণে সকল ক্ষেত্রেই কাজের ধরনে পরিবর্তন এসেছে। ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ সংস্কৃতি এসেছে। ঘরে বসে কাজ করতে হলেও, দীর্ঘ সময় কর্মীদের কাজ করতে হচ্ছে। কাজেই ক্লান্তিও বেড়েছে। লাভের থেকে সমস্যাই বেশি। অনেকেই অভিযোগ করেছেন যে, ওয়ার্ক ফ্রম হোমের ক্ষেত্রে কাজের চাপ বেড়ে গিয়েছে। বাড়ি থেকে যেহেতু কাজ করতে হচ্ছে, তাই কর্মীদের দিয়ে বেশি করে কাজ করানো হচ্ছে। তাই এই পরিস্থিতিতে অনেকেরই প্রত্যাশা, কাজের সময় যদি বাড়ে, তাহলে বাড়ুক ছুটির দিনও।

তথ্য প্রযুক্তি কর্মীদের ক্ষেত্রে সাধারণত সপ্তাহে পাঁচ দিন কাজ করতে হয়, ছুটি থাকে শনি ও রবিবার। এবার বিভিন্ন স্তরে আলোচনা চলছে তিন দিনের ছুটি নিয়ে। অর্থাৎ সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে, সপ্তাহে চারদিন কাজ করতে হবে, আর তিনদিন ছুটি থাকবে এবার থেকে। বিশেষজ্ঞরা দেখেছেন যে, যে সব দেশে অপেক্ষাকৃত কম সময় বা সপ্তাহে অপেক্ষাকৃত কম দিন কাজ করতে হয়, সেখানে কর্মীদের উৎপাদনশীলতা বেশি। আর যেখানে দীর্ঘ সময় কর্মীদের কাজ করতে হয়, এবং তার জেরে কর্মীদের মধ্যে ক্লান্তি আসে, সেখানে তাঁদের উৎপাদনশীলতা কমে যায়।

তাই এবার ছুটির ক্ষেত্রে বিপ্লব এনে দেখিয়েছে ভারতের সাইবার সুরক্ষা সংস্থা ‘টিএসি সিকিউরিটি’। সপ্তাহে চারদিন কাজ করতে হয় এই সংস্থার কর্মীদের। সংস্থার দাবি, এইভাবে সংস্থার উৎপাদন ক্ষমতা বাড়বে। আপাতত সাত মাসের জন্য এই নতুন সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হচ্ছে বলেই জানা গিয়েছে। সংস্থার মুম্বইয়ের অফিস এই সাত মাস তিনদিন করে তাঁদের অফিস বন্ধ রাখবে। শুক্র, শনি এবং রবিবার বন্ধ থাকবে অফিস। সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, তাঁরা চায় কর্মীদের সামাজিক এবং পেশাগত জীবনে সামঞ্জস্য থাকুক। বদলে কর্মীরা আরও প্রাণবন্ত হয়ে কাজে যোগ দেবেন। জানা গিয়েছে, এই ঘোষণার পর, অনেক কর্মীই বিভিন্ন কোর্সের জন্য আবেদন করেছেন।

পাশাপাশি সংস্থার পক্ষ থেকে এও জানা গিয়েছে যে, এই সাত মাসে যদি দেখা যায় যে, কর্মীদের মধ্যে কাজের উৎসাহ বেড়েছে, তাহলে এই নিয়ম স্থায়ী হবে মুম্বইয়ের অফিসের জন্য। সংস্থার পক্ষ থেকে কর্মীদের নিয়ে একটি সমীক্ষা চালানো হয়। সেখানেই দেখা যায় যে, ৮০ শতাংশই চাইছে সপ্তাহে ৪ দিন বেশি সময় ধরে কাজ করে, সপ্তাহের শেষ তিনদিনের ছুটি নিতে। সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও জানিয়েছেন, ‘কর্মীদের স্বাস্থ্য ও তাঁদের ভালো থাকার কথা মাথায় রেখেই, এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমরা সংস্থা হিসেবে তরুণ ও তরুণ কর্মীদের নিয়ে কাজ করি। তাই আমরা কর্মীদের নিয়ে পরীক্ষামূলক কাজ করতে পারি।’ উল্লেখ্য, এই সংস্থার মূল অফিস সান ফ্রান্সিসকোতে।