স্ত্রী-সন্তান থাকা সত্ত্বেও স্কুল ছাত্রীকে পালিয়ে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করলেন শিক্ষক! রইলো বিস্তারিত

স্ত্রী-সন্তান থাকা সত্ত্বেও স্কুল ছাত্রীকে পালিয়ে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করলেন শিক্ষক! রইলো বিস্তারিত / প্রতীকী ছবি (Image Source: ipleaders)
স্ত্রী-সন্তান থাকা সত্ত্বেও স্কুল ছাত্রীকে পালিয়ে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করলেন শিক্ষক! রইলো বিস্তারিত / প্রতীকী ছবি (Image Source: ipleaders)

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ মুর্শিদাবাদের এক শিক্ষক বিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও ফের স্কুলের এক ছাত্রীকে পালিয়ে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করেন। আর এই ঘটনার পরই তিনি মুর্শিদাবাদ স্কুল থেকে মিউচুয়াল ট্রান্সফার নিয়ে বীরভূমের সাঁইথিয়া থানা এলাকার দেরিয়াপুর অঞ্চল উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদান করেন। তবে তাঁর ওই স্কুলে যোগদান করতে বাধা প্রদান করেন স্থানীয় গ্রামবাসীরা।

জানা গেছে ওই শিক্ষকের নাম সেখ ইয়াকুব হোসেন। তিনি মুর্শিদাবাদের কান্দি এলাকার জেমো নরেন্দ্রনারায়ণ হাই স্কুলের দর্শনের শিক্ষক ছিলেন। তাঁর বাড়িতে স্ত্রী ও এক পুত্র সন্তান থাকা সত্যেও তিনি এক ছাত্রী কে পালিয়ে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করেন। আর তারপর থেকে তিনি তাঁর প্রথম পক্ষের স্ত্রী ও পুত্রের কোনো যোগাযোগ রাখেন না। আর এই ঘটনার পরই তিনি মুর্শিদাবাদ স্কুল থেকে মিউচুয়াল ট্রান্সফার নিয়ে বীরভূমের সাঁইথিয়া থানা এলাকার দেরিয়াপুর অঞ্চল উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদান করেন। তবে তাঁর যোগদানের দিনই ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা স্কুলের গেটে তালা দিয়ে বিক্ষোভ দেখান।

গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, ওই শিক্ষক বীরভূমের সাঁইথিয়া থানা এলাকার দেরিয়াপুর অঞ্চল উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদান করার কথা শুনেই তাঁর প্রথম পক্ষের স্ত্রী সেখানে এসে গ্রামবাসীদের সকল কথা জানান। আর সেই কথা শোনার পরই গ্রামবাসীরা ঠিক করেন ওই শিক্ষককে তাদের এলাকার স্কুলে শিক্ষকতা করতে দেওয়া যাবে না। কারণ তারা ভয় পাচ্ছেন, আবার যদি ওই শিক্ষক একই ঘটনা ঘটান। তাই তারা বিক্ষোভে নামে। তবে বিক্ষোভের কারণে আপাতত ওই শিক্ষক স্কুলে যোগদান করতে পারে নি, তবে পরবর্তী ক্ষেত্রে যোগদান করতে এলে আবার কোনও বিক্ষোভের সম্মুখীন হতে হবে নাকি সে নিয়ে চিন্তায় বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা।

আরো পড়ুনঃ   ব্রিগেড করা মানেই মানুষের সমর্থন পেয়ে গেলেন, সেটা নয়, কটাক্ষ ফিরহাদের