আশাতীত সাফল্য ‘দিদির দূত’-এর, সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা অতিক্রম করল ৫ লক্ষের গণ্ডী

আশাতীত সাফল্য ‘দিদির দূত’-এর, সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা অতিক্রম করল ৫ লক্ষের গণ্ডী
আশাতীত সাফল্য ‘দিদির দূত’-এর, সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা অতিক্রম করল ৫ লক্ষের গণ্ডী

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ সামনেই বাংলায় বিধানসভা নির্বাচন। আর এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই লড়াইয়ের ময়দানে নেমে পড়েছে প্রতিটি রাজনৈতিক দল। এবারের ভোটের আগে, সোশ্যাল মিডিয়ায় লড়াইয়ে বিজেপিকে কঠিন প্রতিযোগিতার মুখে ফেলেছে রাজ্যের শাসকদল।

আর এই লড়াইয়ে ইতিমধ্যেই ব্যাপক সাড়া ফেলেছে তৃণমূলের ‘দিদির দূত’ অ্যাপ। চালু হওয়ার ২০-২২ দিনের মধ্যেই অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে এই অ্যাপ। জানা গিয়েছে যে, ইতিমধ্যেই ৫ লক্ষেরও বেশিবার ডাউনলোড করা হয়েছে এই অ্যাপ। অন্যদিকে শাসকদলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সীদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে ‘দিদির দূত’ অ্যাপ।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের ৪ তারিখ এই অ্যাপ চালু হয়। জানা গিয়েছে যে, এই অ্যাপ ব্যবহারকারীরা সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে লাইভে যোগাযোগ করতে পারবেন। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সরাসরি কথাও বলা যাবে দিদির সঙ্গে। আর চালু হওয়ার পর, এই কয়েকদিনের মধ্যেই এই অ্যাপ ৫ লক্ষেরও বেশি মানুষ ডাউনলোড করেছেন। এমনটাই দাবি করা হয়েছে তৃণমূলের পক্ষ থেকে।

উল্লেখ্য, আসন্ন নির্বাচনের আগে, তৃণমূলের নয়া হাতিয়ার এই ‘দিদির দূত’ অ্যাপ। নির্বাচনের আগে, আরও বেশি করে বাংলার মানুষের কাছে পৌঁছাতে চাইছে রাজ্যের শাসকদল। বুঝতে চাইছে মানুষের মন। জিততে চাইছে বাংলার মানুষের মন। তাই একের পর এক জনহিতৈষী উদ্যোগ বা প্রকল্প নিয়েই চলেছে শাসকদল।

দিদির সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ ছাড়াও এই অ্যাপে এক ক্লিকে পাওয়া যাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার গত ১০ বছরে কী কী কাজ করেছে তার খতিয়ান। পাশাপাশি সরকার কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সব। অন্যদিকে, রাজনৈতিকভাবে তৃণমূল কংগ্রেসের অবস্থান কী এবং বিভিন্ন জায়গায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে বক্তব্য রেখেছেন, তার মধ্যে বাছাই করা ভাষণগুলি শোনা যাবে এই অ্যাপের মাধ্যমে। সঙ্গে আছে নানা ভিডিও। এছাড়া ব্যবহারকারীরা তাঁদের সমস্যাগুলি সরাসরি দিদির কাছে লিখেও জানাতে পারবেন। অ্যাপটি গুগল প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করা যাচ্ছে। এই সবের মধ্যে দিয়ে মানুষের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস আরও বেশি জনসংযোগ গড়ে তুলতে পারবে বলে মনে করছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাজ্যে এটা প্রথম এমন অ্যাপ, যার সাহায্যে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়। এছাড়াও টুইটারে দলের প্রচারের জন্য #AmiDidirDoot ট্রেন্ডিং করছেন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.