শুভেন্দুকে নিয়ে দলের অন্দরে বাড়ছে ক্ষোভ! কী জানালেন দিলীপ ঘোষ?

শুভেন্দুকে নিয়ে দলের অন্দরে বাড়ছে ক্ষোভ! কী জানালেন দিলীপ ঘোষ?
শুভেন্দুকে নিয়ে দলের অন্দরে বাড়ছে ক্ষোভ! কী জানালেন দিলীপ ঘোষ?

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ রাজ্য বিজেপির অন্দরে ক্রমশ শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে অসন্তোষ এবং ক্ষোভ বাড়ছে। গতকালই শুভেন্দুর বিরুদ্ধে মুখ খোলায় দল থেকে বহিষ্কৃত হয়েছেন হাওড়া জেলার বিজেপির সভাপতি সুরজিৎ সাহা।

বৃহস্পতিবার নিউটাউন ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ এই ক্ষোভ প্রসঙ্গে মুখ খোলেন। তিনি কার্যত স্বীকার করে নেন যে, শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে দলের মধ্যে অসন্তোষ বাড়ছে ক্রমশ। এদিন তিনি বলেন, ‘শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে দলের মধ্যে অসন্তোষ আগে থেকেই ছিল। এর জন্য অনেকে দল ছেড়েও চলে গিয়েছে। অনেকের মধ্যে সন্দেহ দানা বেঁধেছে। অনেকে অনেকরকম ধারণার বশবর্তী হয়ে ভুলভাল কথাবার্তা বলছে।’ যদিও এর পাশাপাশি তিনি এও বলেন যে, ‘দলের মধ্যে অসন্তোষ থাকলেও তা ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে।’

অন্যদিকে, হাওড়ার বিজেপি নেতা তথা জেলা সভাপতি সুরজিৎ সাহার বহিষ্কার প্রসঙ্গে এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘এটা ঠিকই হয়েছে। দলের নিয়মানুবর্তিতা মেনেই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। পার্টির শৃঙ্খল ভাঙলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়টা মিটে গিয়েছে।’ পাশাপাশি এই বহিষ্কার দলে কোনও প্রভাব ফেলবে না বলেই জানিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘পার্টি একটা সিস্টেমে কাজ করে। হাজার হাজার কার্যকর্তা কাজ করছেন। এক আধজনের সমস্যা হতেই পারে। এটা নিয়ে পার্টি খুব একটা চিন্তা করে না। যারা বুথ স্তরের কার্যকর্তা তারা লড়াই করে পার্টিকে জেতাবে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে বিজেপির হাওড়া জেলায় কোন্দল চরমে। শুভেন্দু অধিকারীকে ‘চোর’ বলে বিঁধেছেন বিজেপির হাওড়া জেলার সভাপতি সুরজিৎ সাহা। তাঁর কথায়, নারদা কাণ্ডে শুভেন্দুকে টাকা নিতে দেখা গিয়েছে। বিজেপির কোনও কার্যকর্তাকে নয়৷ আসলে বিজেপির হাওড়া জেলার নেতাদের বিরুদ্ধে তৃণমূলের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভোটে কাজ করার মতো গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন শুভেন্দু অধিকারী। এই কারণেই একুশের নির্বাচনে হাওড়া জেলায় বিজেপি হেরেছে বলেও দাবি করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দুর সেই অভিযোগের পরই, তাঁর সমস্ত দাবি নস্যাৎ করে, রাজ্যের বিরোধী দলনেতার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে তিনি বলেন, ‘বিজেপি বি টিমের অধীনে কাজ করব না। কে প্রকৃত বিজেপি কর্মী তার সার্টিফিকেট শুভেন্দুর থেকে নেব না। আগে তিনি নিজের সততার প্রমাণ দিন। ৬ মাস দলে আসা নেতার থেকে বিজেপি করা শিখব না।’

তবে, সুরজিৎ সাহার এই পদক্ষেপকে ভালোভাবে নেয়নি রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। শুভেন্দুর পাশে দাঁড়িয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, ‘দলের বৈঠকের কথা দলের বাইরে আনা নিয়ম বহির্ভূত’। এরপরই শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।