হতাশায় ভুগছেন মমতা, বিজেপিকে জাঙ্ক বলায় কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

হতাশায় ভুগছেন মমতা, বিজেপিকে জাঙ্ক বলায় কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের
হতাশায় ভুগছেন মমতা, বিজেপিকে জাঙ্ক বলায় কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ সোমবার নদিয়ার রানাঘাট মহকুমার হাবিবপুরের ছাতিমতলায় জনসভায় আগাগোড়া বিজেপিকে নিশানা করেন মমতা। বিজেপিকে এদিন জাঙ্ক পার্টি বলেও কটাক্ষ করেন তিনি। তবে বিজেপিকে পার্টি বলার পাল্টা প্রতিউত্তর দিয়ে দিন মুখ্যমন্ত্রীকে একহাত নিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। একইসঙ্গে তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, “যে লোকগুলো ওর পার্টির সম্পদ ছিল তারা আজ চোর হয়ে গেল? ওনার এই দ্বিচারিতাও লোকে দেখছে”।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী দাবি করে বলেন, “কালো টাকা ‘সাদা’ করতেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন কয়েকজন নেতা। সঙ্গে তাঁদের টাকা গচ্ছিত রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তাই বিজেপিকে ‘ভারতীয় জাঙ্ক পার্টি’-কে অভিহিত করলেন মমতা।

এর পাল্টা জবাব দিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “ওর গলার আওয়াজ শুনে মনে হচ্ছে উনি হতাশ হয়ে পড়েছেন। আমরা বলি ক্ষেপে গেছেন। যেভাবে পার্টির পুরনো লোকেরা চলে যাচ্ছে তাতে হতাশ হয়ে পড়েছেন তিনি। আর যে ভাবে সাধারণ মানুষ বিজেপির কর্মসূচিতে ঝাঁপিয়ে পড়ছে দুটোই ওনার পক্ষে খুন নেগেটিভ যাচ্ছে। সেজন্য হতাশায় অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছেন। উনি যা বলেছিলেন লোকসভা ভোটে মানুষ তার যোগ্য জবাব দিয়েছেন। বিধানসভা নির্বাচনে বাকিটা দেখা যাবে”।

একইসঙ্গে এদিন তৃণমূলের তরফে ‘ওয়াশিং মেশিন’ বলে যে কটাক্ষ করা হচ্ছিল, সেই রেশ ধরে সোমবার বিজেপিকে ‘ডাস্টবিন’ বলেন মমতা। দাবি করেন, কেউ টাকা আত্মসাৎ করে বিজেপিতে যোগ দিলেই তাঁদের দোষ মাফ হয়ে যায়।

এর পাল্টা জবাব দিয়ে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, “ভয় দেখানো হলে তো ওনার পার্টি আগেই ভেঙে যেত। আমরা না ভয় দেখিয়েছি, না দেখাবো। আমরা গণতন্ত্র মেনে সংবিধান মেনে রাজনীতি করি। এভাবে সারা দেশে জিতেছি, এখানেও জিতবো। উনি ২০১১ সালে ভোটে জেতার পর পুলিশ দিয়ে ভয় দেখিয়ে পৌরসভা, পঞ্চায়েত, জেলা পরিষদ একটার পর একটা ভেঙে কংগ্রেস – সিপিএমের থেকে নিজের পার্টিতে নিয়েছেন। সেই মানুষগুলো ছিল জোর করে। আজ সুযোগ পেয়ে বেরিয়ে আসছে। কারণ ওই পার্টির মধ্যে গণতন্ত্রহীন হয়ে, অসম্মানজনক জীবন নিয়ে কেউ বাঁচতে চাইছে না”।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.