সঠিক জায়গায় মন্তব্য করা উচিত! সুরজিৎ সাহার বহিষ্কার প্রসঙ্গে দিলীপ

সঠিক জায়গায় মন্তব্য করা উচিত! সুরজিৎ সাহার বহিষ্কার প্রসঙ্গে দিলীপ
সঠিক জায়গায় মন্তব্য করা উচিত! সুরজিৎ সাহার বহিষ্কার প্রসঙ্গে দিলীপ

সব জায়গায় সব কথা বলা যায় না। সঠিক জায়গায় মন্তব্য করা উচিত। বিজেপির হাওড়া জেলার সভাপতি সুরজিৎ সাহার বহিষ্কার প্রসঙ্গে এমনটাই জানালেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। একইসঙ্গে সমস্যা হলে তার সমাধান করার উপায় রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বুধবার শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার জেরে বিজেপির হাওড়া জেলার সভাপতি সুরজিৎ সাহাকে বহিষ্কার করে দল। কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, প্রকাশ্যে দল বিরোধী মন্তব্য করায় এই সিদ্ধান্ত। আর এরমধ্যে দিয়েই ফের একবার প্রকাশ্যে এসেছে বিজেপির অন্তর্কোন্দল।

এরপর এ প্রসঙ্গে মুখ খুললেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “সমস্যা অভিযোগ থাকতে পারে তার সমাধানের জায়গা আছে। বাইরে বলার কথা এটা নয়। কে কি মন্তব্য করেছেন আমি জানিনা তবে ক্ষোভ বিক্ষোভ থাকতে পারে। মনে দুঃখ থাকতে পারে। তা শোনার জন্য লোক আছে সমাধানের জন্য লোক আছে সেখানেই কথা বলা উচিত”।

প্রসঙ্গত, বিজেপির হাওড়া জেলার নেতাদের বিরুদ্ধে তৃণমূলের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভোটে কাজ করার মতো গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন শুভেন্দু অধিকারী। এই কারণেই একুশের নির্বাচনে হাওড়া জেলায় বিজেপি হেরেছে বলে দাবি করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দু অধিকারীর সেই অভিযোগ নস্যাৎ করে চ্যালেঞ্জের সুরে সুরজিৎ বলেন, ‘আগে প্রমাণ করুণ আপনি কতোটা সৎ। বিজেপিতে এসে শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূলের যে বি-টিম তৈরি করছেন সেখানে হাওড়া কোনও কর্মকর্তা কাজ করে না।’ এরপরেই বহিষ্কার করা হয় সুরজিৎ বাবুকে।

এ প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার জানান, সুরজিৎ সাহার বিরুদ্ধে এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে, তাঁর এই মন্তব্য প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি জানিয়েছিলেন, “কোনও অভিযোগ থাকলে, তা তিনি নেতৃত্বকে জানাতে পারতেন। দলের বাইরে আনা ঠিক হয়নি। প্রয়োজনে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে দল। আর এর পরেই এই বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত বলে জানা গিয়েছে”।