বড়ো বড়ো কথা আগে বলে নিক ওঁরা: দিলীপ

রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছিলেন ৫০ থেকে ৭০ হাজার ভোটে জিতবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি শুধু দল নয় বিজেপিতে থেকে জয় বন্দ্যোপধ্যায়ও বলেছিলেন ভবানীপুর থেকে জয়ী হবে মমতাই। একই সুর শোনা গিয়েছিল রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলাতেও। এবার এই প্রসঙ্গেই পাল্টা জবাব দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

এদিন দিলীপ ঘোষ ইকো পার্কে গিয়ে বলেন, “বড়ো বড়ো  কথা আগে বলে নিক ওঁরা।রেজাল্ট যখন ঘোষণা হবে বোঝা যাবে কে কোথায় দাঁড়িয়ে আছে”। ভবানীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালকে দাঁড় করিয়েছিল বিজেপি। সেখানে গিয়ে প্রিয়াঙ্কা ইতিমধ্যেই নিজের দাপট দেখিয়েছে। তাই সেখান থেকেই নিজেদের জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাসী বিজেপি।

অন্যদিকে, প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল গতকাল হাই কোর্টের বিচারপতির কাছে আবেদন জানিয়েছেন ভোট পরবর্তী যে হিংসা হয়েছিল সেরকম যাতে না হয় সেই জন্য পুলিশকে কঠোর নির্দেশ দেওয়া হোক। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ জানান, “স্বাভাবিক বিষয় চিন্তা তো আছে। নির্বাচনের পরে যেরকম হিংসা কত করে দেখেছি আমরা। সারা বছর কমবেশি চলতেই থাকে। আর যে উত্তেজনায় নির্বাচন হয়েছে ভবানীপুরে স্বাভাবিকভাবে মনে হচ্ছে তার প্রতিক্রিয়া কোথাও-না-কোথাও হতেই পারে। সেই চিন্তা থেকে উনি বলেছেন আদালত যেন প্রথম থেকেই নজর রাখে ব্যাপারটার উপরে।”

এমনকি ভোটের ফল প্রকাশের সময় হিংসা ঠেকানো নিয়ে রাজ্যপালকে চিঠি দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। এই বিষয়ে প্রাক্তন রাজ্যসভাপতির বক্তব্য, “গতবারের অভিজ্ঞতা থেকে এটা মনে হচ্ছে যে টিএমসি যেভাবে হিংসার রাজনীতি করছে এখানে আবার হতে পারে, সেই জন্য পুলিশ প্রশাসন নির্বাচন কমিশনের কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার পরে পুলিশ প্রশাসন আবার একটা পার্টির হয়ে যায়। তারা দাঁড়িয়ে থেকে এ ধরনের হিংসা দেখেছে, মদত দিয়েছে এমনকি কমপ্লেন নেয়নি। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই উনি বলেছেন”।