রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতেই বালিকে আলাদা করার সিদ্ধান্ত! মত দিলীপের

রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতেই বালিকে আলাদা করার সিদ্ধান্ত! মত দিলীপের
রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতেই বালিকে আলাদা করার সিদ্ধান্ত! মত দিলীপের

রাজ্য সরকারের তরফে জানানো হয়েছে হাওড়া ও বালিকে পৃথক পুরসভা হিসেবে তৈরি করা হবে। অর্থাৎ হাওড়ারসঙ্গে ভোট হবে না বালি পুরসভার ১৬ টি ওয়ার্ডে। এই নিয়ে এবার কড়া প্রতিক্রিয়া দিলেন বিজেপির সর্ব ভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতেই এই পদক্ষেপ বলে জানান তিনি।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে হাওড়া-বালি পুরসভাকে পৃথক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে বিধানসভায় প্রস্তাব আনছে রাজ্য সরকার। পুর আইন সংশোধনীর জন্য প্রস্তাব আনছে সরকার। ১৯ ডিসেম্বর ভোট হবে হাওড়ার ৫০টি ওয়ার্ডে।

এই প্রসঙ্গে এদিন সকালে প্রাতঃভ্রমণে এসে দিলীপ ঘোষ বলেন, “সমস্ত রাজনৈতিক স্বার্থেই সিদ্ধান্ত। বালিকে এনেই বা কী হল। বালিকে ছাড়াই বা কী ছিল। হয়ত আগের চিন্তা ভাবনা ঠিক ছিল না। চিন্তাভাবনা না করেই ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল তৎকালীন রাজনৈতিক লাভের জন্য। এখন দেখছে উল্টো হয়েছে। তাই পাল্টে দেওয়া হচ্ছে। এই যে খামখেয়ালিপনা এটা যোগ্য প্রশাসকের পরিচয় নয়। এজন্য বাংলার অসুবিধা হচ্ছে।”

এদিকে, কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে পুর ভোট করানোর জন্য দাবি তুলেছে বিজেপি। পাশাপাশি বিজেপি নেতা প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, জানুয়ারি মাসে নতুন ভোটারের তালিকা প্রকাশ হয়। ঘোষণা হয়, ফলে পরে ভোট হলে অনেক নতুন ভোটার ভোট দেওয়ার সুযোগ পাবেন। ইতিমধ্যেই,বিজেপিকে জনস্বার্থ মামলা করার অনুমতি দিয়েছেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব। এরপরেই শুরু হয়েছে মামলার প্রস্তুতি। আগামী বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে।