‘যাঁরা গরুর দুধ খায় না, তাঁরা কীভাবে সোনা পাবে, কীভাবে বুঝবে?’ গরুর দুধে সোনা তত্ত্বে অনড় দিলীপ ঘোষ

‘যাঁরা গরুর দুধ খায় না, তাঁরা কীভাবে সোনা পাবে, কীভাবে বুঝবে?’ গরুর দুধে সোনা তত্ত্বে অনড় দিলীপ ঘোষ
‘যাঁরা গরুর দুধ খায় না, তাঁরা কীভাবে সোনা পাবে, কীভাবে বুঝবে?’ গরুর দুধে সোনা তত্ত্বে অনড় দিলীপ ঘোষ

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বছর দুয়েক আগে, গরুর দুধে ‘সোনা’র হদিশ দিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বছর দুয়েক আগে বর্ধমানে ‘ঘোষ এবং গাভীকল্যাণ সমিতি’র সভায় তিনি দাবি করেছিলেন, ‘গরুর দুধে সোনার ভাগ থাকে। তাই দুধের রং হলুদ হয়।’ বিজেপির রাজ্য সভাপতির এই তত্ত্ব নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। এমন দাবি করে স্বাভাবিকভাবেই বিতর্কে জড়িয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শুক্রবার ফের একবার তিনি বুঝিয়ে দিলেন যে, বছর দুয়েক আগে করা সেই মন্তব্যে এখনও তিনি অনড়।

তাঁর ব্যাখ্যা ছিল, ‘দেশি গরুর কুঁজের মধ্যে স্বর্ণনাড়ি থাকে। সূর্যের আলো পড়লে, সেখান থেকে সোনা তৈরি হয়।’ দিলীপ ঘোষের এই তত্ত্বে হতবাক হয়েছিলেন বিজ্ঞানীরা। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। এবারেও, শুক্রবার এক সাংবাদিক সম্মেলন থেকে ইঙ্গিতে ফের একবার গরুর দুধে সোনা তত্ত্বকেই সমর্থন করলেন বিজেপি নেতা। এর জেরে ফের একবার কটাক্ষেরও শিকার হলেন তিনি।

শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। সেখানেই ফের একবার উঠে আসে গরুর দুধের প্রসঙ্গ। সেই সময়ই দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘বাংলায় তো এখন আর গরু পালন হয় না। আসলে মানুষ এসবের গুরুত্ব বোঝে না তাই এই পরিস্থিতি।’ দিলীপ ঘোষের কথায়, ‘যেটা আসলে দুধই নয়, সেই প্যাকেটের দুধ কিনে সবাই খাচ্ছে। আর গরুর দুধ কেউ খাচ্ছে না।‘

এরপরই তাঁর কথায় উঠে আসে গরুর দুধে ‘সোনা’র প্রসঙ্গ। তিনি বলেন, ‘আমি বলেছিলাম গরুর দুধে সোনা পাওয়া যায়, তা নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। যাঁরা কোনোদিন গরুর দুধ খায় না, তাঁরা কীভাবে সোনা পাবে, কীভাবে বুঝবে?’ অর্থাৎ তিনি বলছেন, গরুর দুধে সোনা থাকে।

অন্যদিকে, বিজেপির রাজ্য সভাপতির এই দাবি প্রসঙ্গে এক বিজ্ঞানী জানিয়েছেন যে, ‘এটা সম্পূর্ণ  অবৈজ্ঞানিক কথা। গরুর দুধে অনেক প্রয়োজনীয় উপাদান থাকে। তাই বাচ্চা থেকে বড়, সব বয়সী মানুষদের দুধ খেতে বলা হয়। কিন্তু তাতে কোনওভাবে সোনা নেই। একজন বিশিষ্ট মানুষের মুখে এহেন মন্তব্য মানা যায় না।’ এদিকে, এইসব অবৈজ্ঞানিক মন্তব্যে হাসির পাত্র হলেও, সেসবকে গুরুত্ব দিতে নারাজ দিলীপ ঘোষ।