কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানেই করোনা টিকার ডবল ডোজ! গাফিলতির অভিযোগ হাসপাতালের বিরুদ্ধে

কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানেই করোনা টিকার ডবল ডোজ! গাফিলতির অভিযোগ হাসপাতালের বিরুদ্ধে/ প্রতীকী ছবি
কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানেই করোনা টিকার ডবল ডোজ! গাফিলতির অভিযোগ হাসপাতালের বিরুদ্ধে/ প্রতীকী ছবি

বলাগর থানা এলাকার গুপ্তিপাড়ার রথতলার বাসিন্দা সইফুদ্দিন দফাদার টিকা নিতে এসেছিলেন পাণ্ডুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে। তবে বোঝেননি একই দিনে ডবল ডোজের টিকা পেয়ে যাবেন তিনি। আর এতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ওই হাসপাতাল চত্বরে। এদিকে নিজেদের দোষ স্বীকার করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ঘটনার সূত্রপাত বুধবার। হুগলির পান্ডুয়া থানার অন্তর্গত পান্ডুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে ২০ তারিখ টিকা নিতে যান সইফুদ্দিন দফাদার। সেখানে প্রথম ডোজের ভ্যাকসিন নিতে যান তিনি। এরপর যথারীতি স্বাস্থ্যকর্মীরা তাকে প্রথমে একবার টিকা দেয়। কিন্তু তারপরেই নিজেদের মধ্যে গল্প করতে শুরু করে দেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। ঠিক তখনই সইফুদ্দিন এক টেবিল থেকে উঠে গিয়ে আর এক টেবিলে বসেন। সে সময়েই ঘটে বিপত্তি।

স্বাস্থ্যকর্মীরা ভুল করে সইফুদ্দিনকে প্রথম টিকা দেওয়ার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই আবার বাঁ হাতে আরো একবার ভ্যাকসিনের ডোজ দেন। সেই মুহূর্তেই সইফুদ্দিন স্বাস্থ্যকর্মীদের গোটা বিষয়টি বললে তারা বিষয়টিকে তেমন পাত্তা দেননি। বরং তাকে প্যারাসিটামল খাওয়ার পরামর্শ দেন।

কিন্তু এর কিছুক্ষণের মধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়েন সইফুদ্দিন। তার গায়ে হাতে পায়ে অসহ্য যন্ত্রণা এবং জ্বালা করতে শুরু করে। আজ শুক্রবার ফের একবার ওই হাসপাতালে আসেন তিনি চিকিৎসা করার জন্য। এদিকে চিকিৎসা করতে এসে একইসঙ্গে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ওই ব্যক্তি। গোটা বিষয়টি শুনে স্বাস্থ্য আধিকারিক নিজেদের গাফিলতি স্বীকার করেন। যদিও তাঁরা জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তির শারীরিক অবস্থার ওপর নজর রাখা হচ্ছে, চিন্তার কোনও বিষয় নেই।

তবে, একইসঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রশ্ন তুলেছে, যে মুহূর্তে তাকে টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হচ্ছিল সেই মুহূর্তে তিনি কেন বারণ করেননি? একইসঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের আরো প্রশ্ন, টিকা নেওয়া হয়ে গেলেও কেন ওই ব্যক্তি বাকি মানুষরা যেখানে টিকা নেওয়ার জন্য বসেছিলেন সেই টেবিলে গিয়ে বসলেন?