ঘূর্ণিঝড়ের দূর্যোগ জারি থাকবে বৃহস্পতিবারও! রাজ্যের এই জেলাগুলিতে রয়েছে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা

ঘূর্ণিঝড়ের দূর্যোগ জারি থাকবে বৃহস্পতিবারও! রাজ্যের এই জেলাগুলিতে রয়েছে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা / প্রতীকী ছবি
ঘূর্ণিঝড়ের দূর্যোগ জারি থাকবে বৃহস্পতিবারও! রাজ্যের এই জেলাগুলিতে রয়েছে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা / প্রতীকী ছবি

একটুর জন্য বেঁচে গেল কলকাতা ও রাজ্যের অন্যান্য জেলা। আজ সকালেই ঘূর্ণিঝড় ইয়াস ওড়িশা উপকূলে আছড়ে পড়ে। এরপর ওড়িশা এবং এই রাজ্যের পূর্ব মেদিনীপুরে দাপট দেখানোর পর ক্রমশ তা সরছে ঝাড়খণ্ডের দিকে। ফলে ঝড়ের তীব্র প্রকোপের হাত থেকে আপাতত মুক্তি পেল রাজ্যের অধিকাংশ জেলা। তবে ঘূর্ণিঝড়ের দূর্যোগ কিন্তু এখনই সম্পূর্ণ কাটছে না। বরং এর জেরে আগামীকাল,বৃহস্পতিবার, রাজ্যের পশ্চিমপ্রান্ত ও উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া দপ্তরের সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার রাজ্যের পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমান, বাঁকুড়া এবং বীরভূম জেলায় ভারী বৃষ্টিপাতের (৭ থেকে ১১ সেন্টিমিটার) পূর্বাভাস রয়েছে। এছাড়াও উত্তরবঙ্গের মালদহ, দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং জেলাগুলিতেও বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা৷ অন্যদিকে, ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে যোগ হয়েছে পূর্ণিমার ভরা কোটাল। ফলে জলস্তর বেড়ে পূর্ব মেদিনীপুর, দুই চব্বিশ পরগণার উপকূলবর্তী বহু এলাকা প্লাবিত হয়ে গিয়েছে। তাই বৃহস্পতিবার যে জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে, সেখানে আগে থেকেই মোকাবিলায় সমস্ত প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে প্রশাসন৷

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় ইয়াস ক্রমশ ঝাড়খণ্ডমুখী। তার জেরে এদিন রাত থেকে সেখানে প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে৷ আগামীকালও ঝাড়খণ্ড এবং বিহারের একাংশে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির প্রবল সম্ভাবনা৷ এছাড়াও রাজ্যের বেশ কয়েকটি জায়গায় অতি প্রবল বর্ষণের সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷ তাই বলা যেতে পারে, রাজ্যে ইয়াসের দূর্যোগ বৃহস্পতিবারের আগে কাটার কোনও সম্ভাবনাই নেই।