কান চুলকাচ্ছে, সাবধান! কটন বাড ব্যাবহার নয়

কান চুলকাচ্ছে, সাবধান! কটন বাড ব্যাবহার নয়
কান চুলকাচ্ছে, সাবধান! কটন বাড ব্যাবহার নয়

অনেকেই ময়লা পরিষ্কারের জন্য কানে কটন বাড ব্যবহার করেন, এটা তো খুবই সাধারণ বিষয় হয়ে গেছে। অথচ এটা ব্যবহার করা মোটেও স্বাস্থ্যসম্মত নয়। বরং কটন বাড ব্যবহার করে অজান্তে নিজেদেরই বিপদ ডেকে আনছি আমরা নিজেরাই। জানেন কি কি সমস্যা হতে পারে কটন বাড ব্যাবহারে-

জানেন কি কটন বাড ব্যবহারের ফলে কানের ভেতরের ময়লা যতটা না তার সাথে বের হয়, তারও চেয়ে বেশি ভেতরের দিকে সেগুলো ঢুকে যায়। আবার অনেক ক্ষেত্রে এসব ময়লা কানের পর্দার একদম কাছাকাছি বা পর্দার ওপর স্তর আকারে জমে যায়। তখন সেই ময়লা কানের পর্দায় ব্লক হয়ে যায়, যা আমাদের শ্রবণে বাধা হয়ে দাঁড়ায়।

আবার বহুদিন ধরে কটন বাড ব্যবহার করলে কানের মধ্যে ছত্রাক সংক্রমণও হতে পারে। তখন অল্প আঘাত লাগলেই কানের পর্দা দ্রুত ফেটে যাওয়া বা কানের হাড় ভেঙে যাওয়ার মতো ঝুঁকি দেখা যায়। এমনকি সেই পর্যায়ে শ্রবণশক্তি নষ্ট হতে পারে। হারিয়ে ফেলতে পারেন দেহের ভারসাম্যও। এছাড়া কানের ভেতরের সূক্ষ্ম চামড়ায় নানা সমস্যা তৈরি করতে পারে এগুলি সাথে ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায় কটন বাড।

জেনে রাখা ভালো, কান খুঁচিয়ে পরিষ্কারের কোনো প্রয়োজনই নেই। প্রাকৃতিকভাবেই কানের ময়লা নিজে থেকেই বেরিয়ে আসে। কানের সামনের দিকেই যেসব ময়লা দেখা যায়, সেগুলো কটন বাড দিয়ে পরিষ্কার করা হয়তো সম্ভব; কিন্তু ভেতরের ময়লা পরিষ্কার করা একদমই সম্ভব নয়। আর আপনি যদি কোনো সমস্যা হয়েছে মনে করেন তাহলে সে কাজটি ইএনটি চিকিৎসকরাই করবেন। তাই কানের সুস্থতার জন্য আজই ছাড়ুন কটন বাড। প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞ দের পরামর্শ নিন।