কমিশনের বিরুদ্ধে মমতার যাবতীয় অভিযোগ ভিত্তিহীন, বিবৃতি দিয়ে দাবি কমিশনের

কমিশনের বিরুদ্ধে মমতার যাবতীয় অভিযোগ ভিত্তিহীন, বিবৃতি দিয়ে দাবি কমিশনের
কমিশনের বিরুদ্ধে মমতার যাবতীয় অভিযোগ ভিত্তিহীন, বিবৃতি দিয়ে দাবি কমিশনের

উপ-নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন এবং জেলা পুলিশ আধিকারিকদের একাংশের মধ্যে কথোপকথনের সামনে এনে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্ব করার অভিযোগ এনেছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার এক বিবৃতিতে তৃণমূল সুপ্রিমো এই অভিযোগ যে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন তা জানালো নির্বাচন কমিশন। পাশাপাশি ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর এই অভিযোগ বিভ্রান্তিকর।

শনিবার বোলপুর থেকে এক সাংবাদিক বৈঠকে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট সামনে আনেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে একুশের নির্বাচনী ৮দফা ভোটের কমিশন কী কী ব্যবস্থা নিচ্ছে তা নিয়ে পুলিশ পর্যবেক্ষক এবং জেলা পুলিশ আধিকারিকদের কথোপকথন রয়েছে। এরপরেই অভিযোগ করে তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, প্রত্যেক দফা ভোটের আগে ‘তৃণমূল গুণ্ডাবাহিনী’ এবং দলের দাপুটে নেতা ঘনিষ্ঠদের নজরবন্দি কিংবা গ্রেপ্তারির নির্দেশ দিয়েছেন কমিশনের তরফে নিযুক্ত পর্যবেক্ষকরা। পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসনের উপরেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

এরপরেই এদিন পাল্টা বিবৃতি দেয় কমিশন। ওই বিবৃতিতে কমিশন দাবি করে জানায়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে, ভিত্তিহীন, বিভ্রান্তিকর। পাশাপাশি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘তৃণমূলের গুণ্ডাবাহিনী’ প্রসঙ্গে কমিশন দাবি করে জানিয়েছে, তৃণমূল সুপ্রিমোর এই অভিযোগ একেবারেই ঠিক নয়। কমিশন এ ধরনের কোনও নির্দেশ দেয়নি।

অন্যদিকে, কমিশনের তরফে আরও জানানো হয়, প্রতিটি দফার ভোট শান্তিপূর্ণ ভাবে করানোর জন্য যা পদক্ষেপ নেওয়ার দরকার কমিশন সেই সব কিছুই করেছে। এমনকি যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বা যাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ প্রমাণ হাতে পেয়েই কমিশন সংশ্লিষ্ট পদক্ষেপ নিয়েছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.