আম-জনতার জন্য স্বস্তির খবর! পেট্রল-ডিজেলের পর এবার অনেকটাই কমল ভোজ্য তেলের দাম

আম-জনতার জন্য স্বস্তির খবর! পেট্রল-ডিজেলের পর এবার অনেকটাই কমল ভোজ্য তেলের দাম
আম-জনতার জন্য স্বস্তির খবর! পেট্রল-ডিজেলের পর এবার অনেকটাই কমল ভোজ্য তেলের দাম / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষের কাছে বড় দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছিল পেট্রল-ডিজেলের বর্ধিত মূল্য। ক্রমশ বেড়েই চলেছিল দাম। পেট্রল-ডিজেলের দাম বাড়তে বাড়তে ১০০-র গণ্ডি অতিক্রম করে।  অবশেষে অতি সম্প্রতি লিটার প্রতি অনেকটাই কমে পেট্রল-ডিজেলের দাম। কিছুটা হলেও স্বস্তি পায় সাধারণ মানুষ। দাম বাড়ছিল ভোজ্য তেলেরও। কিন্তু এবার আম-জনতার হেঁশেলের জন্যও রয়েছে সুখবর।

পেট্রল-ডিজেলের পর এবার কমছে ভোজ্য তেলের দাম। কেন্দ্র একাধিক ভোজ্য তেলের উপর বেসিক ডিউটি বা সাধারণ শুল্ক প্রত্যাহার করতেই বাজারে তেলের দাম কমতে শুরু করেছে। শুক্রবার কেন্দ্রীয় খাদ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। কেন্দ্র জানিয়েছে, উৎসবের মরশুমে শুক্রবার বাজারে বাদাম তেল, সয়াবিন তেল এবং সূর্যমুখী তেলের দাম কমেছে ৫ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত। যদিও সরষের তেলের দাম কমেনি। এদিকে, কিছুদিন আগেই উৎসবের মরশুমের কথা বিবেচনা করে বিভিন্ন ভোজ্য তেল বিক্রয়কারী সংস্থাকে দাম কমানোর জন্য কেন্দ্রের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছিল। যার প্রেক্ষিতে ভোজ্য তেলগুলির সংগঠন সলভেন্ট এক্সট্র্যাক্টর অ্যাসোসিয়েশন তথা এসইএ ভোজ্য তেলগুলির দাম কেজি প্রতি ৩ থেকে ৫ টাকা পর্যন্ত কমিয়ে দেয়। তবে, তেল বিক্রয়কারী সংস্থাগুলির একাধিক সংগঠন স্পষ্ট জানিয়ে দেয় যে, তাঁদের পক্ষে করের বোঝা সরিয়ে, ভোজ্য তেলের দাম বেশি কমান সম্ভব নয়। এর পরেই কেন্দ্র সরকার একাধিক অশোধিত তেলের উপর বেসিক ডিউটি বা সাধারণ শুল্ক পুরোপুরি তুলে নেয়। যা আগে আড়াই শতাংশ হারে বেসিক ডিউটি নেওয়া হত, তা এখনও পুরোপুরি শূন্য।

শুক্রবার কেন্দ্রীয় খাদ্যসচিব শুধাংশু পাণ্ডে জানিয়েছেন, ‘সবচেয়ে খারাপ সময় আমরা পেরিয়ে এসেছি।’ ভোজ্য তেলের জোগান বেড়েছে, শুল্ক কমানো এবং স্টক কমানোর ফলে এখন দাম অনেকটাই কমানো গিয়েছে। গৃহস্থালির নিত্য প্রয়োজনীয় তেলের দাম নিয়ন্ত্রণ ও উপভোক্তাদের স্বস্তি দিতে কয়েকজন আমদানিকারক ও রপ্তানিকারক ছাড়া, ভোজ্যতেল ও তেলের বীজের ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে ১ মার্চ পর্যন্ত স্টকের সর্বোচ্চ সীমা আরোপ করেছে কেন্দ্র সরকার।

অন্যদিকে, শুক্রবার কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এই তেলগুলির উপর কৃষি সেস এবং সাধারণ শুল্ক অনেকটাই কমানো হয়েছে। যার সুফল মিলছে খোলা বাজারে। তবে, সরষের তেলের দাম নিয়ে যে এখনও চিন্তা রয়েছে সেকথা স্বীকার করে নিয়েছেন কেন্দ্রীয় খাদ্যসচিব। শুক্রবার কেন্দ্র তরফে দাবি করা হয়েছে যে, লিটার প্রতি সয়াবিন, সূর্যমুখী এবং বাদাম তেলের দাম বিভিন্ন শহরে কমেছে ৫ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত। বেসিক ডিউটি প্রত্যাহার করার পর বিভিন্ন সংস্থাই দাম কমিয়েছে তেলের। কিন্তু সরষের তেলের ক্ষেত্রে এখনও কোনও ভাল খবর শোনাতে পারেনি কেন্দ্র।

দিওয়ালির আগে পেট্রল এবং ডিজেলের দাম একধাক্কায় অনেকটা কমিয়ে আম নাগরিককে স্বস্তি দিয়েছে কেন্দ্র। পাশাপাশি কেন্দ্রের পথ অনুসরণ করে, এখনও পর্যন্ত জ্বালানি তেলে ভ্যাট কমিয়েছে মোট ২২টি রাজ্য। যার ফলে আম জনতা অনেকটাই স্বস্তি ও সুবিধা পেয়েছে। আর এবার ভোজ্য তেলের দামও অনেকটাই কমায় আম-নাগরিকের হেঁশেলেও মিলেছে স্বস্তি।