হাসপাতালের বিল বাকি, বেডের সঙ্গে বৃদ্ধকে বেঁধে রাখল কর্তৃপক্ষ!

বিল বাকি, তাই বেডের সঙ্গে বাঁধা বৃদ্ধ

হাঁটুর ওপর তোলা খাটে ধুতি। গায়ে সাদা শার্ট। মাথায় পাগড়ি। শীর্ণদেহীর দুটো পা, একটা হাত খাটের সঙ্গে বাঁধা। আরেকটি হাতে চলছে স্যালাইন। এই অবস্থায় তিনি এপাশ-ওপাশও করতে পারছেন না। ফলে নিরুপায় হয়ে এক পাশ ফিরে শুয়ে। চোখ ভর্তি জল অসহায় বৃদ্ধের। কেন এভাবে পড়ে আছেন হাসপাতালে? খবর, হাসপাতালের বিল মেটাতে পারেননি তিনি। তারই শাস্তি এই বন্ধন। মধ্যপ্রদেশের শাজাপুর জেলা হাসপাতালের এই মর্মান্তিক ঘটনার কথা জানাজানি হতেই ফের কলঙ্কিত মানবিকতা। যদিও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাফাই, বৃদ্ধের খিঁচুনি হয়। অজ্ঞাতে নিজের কোনও ক্ষতি যাতে না করেন তাই বেডের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়েছে তাঁকে।

খবর পেয়েই অবিলম্বে ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। ঘটনার সত্যাসত্য বিচার করে দোষীদের কড়া শাস্তির বিধানও দিয়েছেন তিনি। বৃদ্ধের পরিবারের পক্ষ খেকে জানানো হয়েছে, ভর্তি করার সময় পাঁচ হাজার টাকা হাসপাতালে জমা করা হয়েছিল। কিন্তু চিকিৎসায় নির্দিষ্ট দিনের বেশি সময় লাগায় ১১ হাজার টাকার বিল ধরায় হাসপাতাল। যা মেটাতে পারেননি তাঁরা। তারপরেই এভাবে বৃদ্ধকে বেঁধে রাখে কর্তৃপক্ষ।

যদিও পুরো ঘটনা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে কর্তৃপক্ষ। উপরন্তু হাসপাতালের তরফ থেকে বলা হয়েছে, নির্ধারিত পাওনা টাকাও নাকি মকুব করে দেওয়া হয়েছে। এদিকে অমানবিক এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা কমল নাথ। ট্যুইটে সেই মর্মান্তিক ভিডিও শেয়ার করে বলেছেন, সভ্যতা এগোচ্ছে না পিছু হাঁটছে সেটাই এখন দেখার।

আরও পড়ুনঃ  "সরকার হতকারিতার মধ্যে নিয়েছেন এই সিদ্ধান্ত," চিনা অ্যাপ ব্যান নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য নুসরতের

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.