বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

শুটিং ফ্লোরে পৌঁছতে সামান্য দেরি, ক্ষমা চাইলেন কিং খান! শাহরুখের ব্যবহারে মুগ্ধ কলাকুশলীরা

চৈত্রী আদক

প্রকাশিত: জুন ২২, ২০২২, ০৫:১১ পিএম | আপডেট: জুন ২২, ২০২২, ০৫:১১ পিএম

শুটিং ফ্লোরে পৌঁছতে সামান্য দেরি, ক্ষমা চাইলেন কিং খান! শাহরুখের ব্যবহারে মুগ্ধ কলাকুশলীরা
শুটিং ফ্লোরে পৌঁছতে সামান্য দেরি, ক্ষমা চাইলেন কিং খান! শাহরুখের ব্যবহারে মুগ্ধ কলাকুশলীরা

বংনিউজ২৪×৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বলিউডের ‘বাদশা’ বলে কথা। সারাদিন প্রবল ব্যস্ততা ‘কিং খান’-এর। এত বড় মাপের অভিনেতা হয়েও তাঁর ব্যবহার একেবারে রাজার মতই। শুটিং ফ্লোরে ক্যামেরাম্যান থেকে শুরু করে অন্যান্য কলাকুশলীদের সঙ্গে তিনি সর্বদাই সদ্ভাব বজায় রাখার চেষ্টা করেন। এতদিন একথা শুনলেও এবার তার প্রমাণ পেলেন এক বিজ্ঞাপন ছবির কলাকুশলীরা।

বলিউডের তাবড় তাবড় অভিনেতারা সারাদিন এতটাই ব্যস্ত থাকেন যে এক কাজ থেকে অন্য কাজে পৌঁছতে প্রায়শই তাঁদের দেরি হয়ে যায়। ছবি হোক বা বিজ্ঞাপন, কলাকুশলীরা প্রত্যেকেই এই বিষয়টিতে অভ্যস্ত। কিন্তু শুটিং ফ্লোরে পৌঁছতে সামান্য দেরি হওয়ায় বলিউডের ‘বাদশা’ যে ক্ষমা চেয়ে বসবেন এমনটা কেউ কল্পনাও করতে পারেননি। ‘কিং খান’-এর এমন মিষ্টি ব্যবহারের ঘোরে এখনও আচ্ছন্ন হয়ে রয়েছেন ওই বিজ্ঞাপন ছবির কলাকুশলীরা।

মুম্বইয়ের সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, সারারাত শুটিং করেছিলেন অভিনেতা। পরের দিন সকাল সকালই ছিল একটি বিজ্ঞাপন ছবির শুটিং। আগের কাজ ছেড়ে শুটিং ফ্লোরে পৌঁছতে সামান্য দেরি হয়ে যায় শাহরুখের। এরপরই মিষ্টি হেসে সকলের কাছ থেকে ক্ষমা চেয়ে নেন বি-টাউনের ‘বাদশা’। অভিনেতার ব্যবহারে রীতিমত মুগ্ধ হয়েছেন চিত্রগ্রাহক লরেন্স ডিকুন্হা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শাহরুখের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিয়েছেন লরেন্স। লিখেছেন, “শাহরুখের সঙ্গে এই প্রথম শুট করলাম। এত বড় একজন অভিনেতা, তবু কি মিষ্টি ব্যবহার! দেরি করে আসার দরুন কলাকুশলীদের প্রত্যেকের কাছে যেভাবে ক্ষমা চাইলেন তাতে আমরা মুগ্ধ।”

এছাড়াও লরেন্স জানিয়েছেন, প্রত্যেক কলাকুশলীর প্রতি তাঁর ব্যবহার দেখার মত ছিল। প্রত্যেককেই যোগ্য সম্মান দিয়ে কথা বলছিলেন তিনি। শুটিংয়ের ফাঁকে সবার সঙ্গে হাসি-ঠাট্টায় মেতে উঠেছিলেন ‘কিং খান’। এমনকি শুটিং শেষে সকলের সঙ্গে ছবিও তোলেন তিনি। তাঁর বিশ্বজোড়া খ্যাতি, তবুও সকলের সঙ্গে সহজভাবে মিশে যাওয়ার অদ্ভুত ক্ষমতা রয়েছে অভিনেতার। শাহরুখের এই ব্যবহারে আপ্লুত গোটা শুটিং ফ্লোর।