মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই, ২০২২

‘ফ্যাট ফ্রি’ প্লাস্টিক সার্জারি করাতে গিয়ে বিপত্তি! ফুসফুসে সংক্রমণের জেরে মৃত্যু কন্নড় অভিনেত্রী চেতনার

চৈত্রী আদক

প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২২, ০৫:৪৬ পিএম | আপডেট: মে ১৭, ২০২২, ০৫:৪৬ পিএম

‘ফ্যাট ফ্রি’ প্লাস্টিক সার্জারি করাতে গিয়ে বিপত্তি! ফুসফুসে সংক্রমণের জেরে মৃত্যু কন্নড় অভিনেত্রী চেতনার
‘ফ্যাট ফ্রি’ প্লাস্টিক সার্জারি করাতে গিয়ে বিপত্তি! ফুসফুসে সংক্রমণের জেরে মৃত্যু কন্নড় অভিনেত্রী চেতনার

বংনিউজ২৪×৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ প্লাস্টিক সার্জারি করাতে গিয়ে মাত্র ২১ বছর বয়সেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন কন্নড় অভিনেত্রী চেতনা রাজ। ছোট থেকেই অভিনয়ের শখ। মডেলিং জগতে পা রাখার পর থেকেই একের পর এক দক্ষিণী টেলিভিশন সিরিয়ালে অভিনয়ের সুযোগ পান চেতনা। গীতা’, ‘দোরেসানি’, ‘ওলাভিনা নিলদানা’ নামের কন্নড় ধারাবাহিকে অভিনয় করে ব্যাপক সুখ্যাতি অর্জন করেছিলেন তিনি। কিন্তু স্বাস্থ্য সচেতনতার জেরে হঠাৎই অতিরিক্ত মেদ ঝরানোর সিদ্ধান্ত নেন অভিনেত্রী। ‘ফ্যাট ফ্রি’ প্লাস্টিক সার্জারি করাতে গিয়ে তিনি যে জীবনের সব থেকে বড় বিপদ ডেকে আনবেন তা বোধহয় আগে থেকে উপলব্ধি করতে পারেননি চেতনা।

জানা গিয়েছে, সোমবারই মেদ ঝরাতে প্লাস্টিক সার্জারি করানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সেই উদ্দেশ্যে বেঙ্গালুরুর একটি বেসরকারি কসমেটিক সেন্টারে ভর্তিও হন। কিন্তু বারবার হাসপাতালের চিকিৎসকদের চেতনা জানান, তাঁর প্লাস্টিক সার্জারির ব্যাপারে পরিবারের সদস্যরা যেন ঘুণাক্ষরেও টের না পান। পুরো বিষয়টি বাবা-মার থেকে গোপন করেই অস্ত্রোপচার করান চেতনা।

কিন্তু অস্ত্রোপচারের পর থেকেই অভিনেত্রীর ফুসফুসে দেখা দেয় একাধিক সমস্যা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে খবর, চেতনার ফুসফুসে ক্রমশই ফ্ল্যুইড জমতে শুরু করে। ফলস্বরূপ শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে তাঁর। ওইদিন বিকেল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ কসমেটিক সেন্টারের কর্মীরা চেতনাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান।

ওই অবস্থাতেও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকদের চেতনা জানান, তাঁর অসুস্থতার খবর যেন বাইরে প্রচার না হয়। এমনকি কসমেটিক সেন্টারের চিকিৎসকরাও তাঁদের হুমকি দিতে থাকেন, হৃদরোগে আক্রান্ত রোগী হিসেবেই চেতনার চিকিৎসা করাতে হবে। এরপর চেতনাকে সিপিআর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকরা। কিন্তু দীর্ঘ ৪৫ মিনিটের চেষ্টার পরেও চেতনাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

মৃত্যুর খবর পেয়ে অভিনেত্রীর পরিবারের সদস্যরা ওই হাসপাতালের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অন্যদিকে বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউ ইনটেন্সিভিস্ট ডাঃ সন্দীপ বাসবেশ্বনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ ওঠে, চেতনার মৃত্যুর কথা আগে থেকেই জানতেন ওই বেসরকারি কসমেটিক সেন্টারের চিকিৎসকরা। সন্ধ্যে ৭ টা নাগাদ চেতনাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।