ডিম তো সকলেই খান কিন্তু এই বিশেষ গুনাগুন সম্পর্কে জানেন কি!

ডিম তো সকলেই খান কিন্তু এই বিশেষ গুনাগুন সম্পর্কে জানেন কি!
ডিম তো সকলেই খান কিন্তু এই বিশেষ গুনাগুন সম্পর্কে জানেন কি!

ডিমের কুসুমে উপস্থিত থাকে অধিক মাত্রায় কোলেস্টেরল, তাই ধরে নেওয়া হয় যে, যাঁদের হার্ট এর সমস্যা রয়েছে এবং রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেশি আছে, তাঁদের জন্য ডিমের কুসুম অত্যন্ত ক্ষতিকরই বলা চলে। বর্তমানে বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক গবেষণায় এটি প্রমাণিত হয়েছে, ডিমের কুসুম থেকে যে কোলেস্টরেল পাওয়া যায়, তা রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায় না। ডিমে ফলেট, কোলিন, ভিটামিন এ, ভিটামিন ডি, ভিটামিন ই, লেটিইন এবং জি-অ্যাকজানথাইন থাকে। অনেকেই কুসুম ছাড়া ডিম খান কিন্তু কুসুমসহ ডিমও খুব একটা ক্ষতিকর নয়।

ডিম খাওয়া গর্ভবতী মা, শিশু, কিশোর, প্রাপ্তবয়স্কদের জন্যও খুব উপকারি। বিশেষজ্ঞদের মতানুসারে, এমন অনেক খাবার আছে যা ডিমের সঙ্গে খেলেই হতে পারে বিপদ। যেমন কলা, মধু, লেবু, টক দই এই জিনিসগুলি ভুলেও খাবেন না ডিম খাওয়ার পরে।

ডিম খাওয়ার ব্যাপারে সবচেয়ে সহজ, পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যসম্মত হল ডিম সিদ্ধ করে খাওয়া। বেশিরভাগ পুষ্টিবিদদের মতে, ডিমের ওমলেট না করে খাবার পরামর্শ দেন কারণ ডিম যে তেলে ভাজা হয়, তার মধ্যেকার স্যাচুরেটেড ফ্যাট কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়িয়ে ফেলতে পারে।

কাঁচা ডিম বা হালকা করে রান্না ডিমও পুষ্টিযুক্ত, এইভাবে খেলে জীবাণু সংক্রমণের ব্যাপারে উদ্বেগ থাকে তাই ডিম রান্না করে খাওয়াই সবচেয়ে নিরাপদ বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। যাঁরা ওজন ঠিক রাখতে চায় কিংবা বাড়াতে না চায় তাদের ডিম পোচ না খাওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ।