আঙুল ফাটানো কি আসলে উচিত! জেনে নিন বিশেষজ্ঞরা কি বলছেন

আঙুল ফাটানো কি আসলে উচিত! জেনে নিন বিশেষজ্ঞরা কি বলছেন
আঙুল ফাটানো কি আসলে উচিত! জেনে নিন বিশেষজ্ঞরা কি বলছেন

আঙ্গুল ফাটানো বা মটকানো খুবই সাধারণ একটি ঘটনা কিন্তু তার পিছনের রহস্য অনেকেই জানেন না। অনেক আগের একটি গবেষণায় দাবী করা হত যে, আঙুল খুব বেশি ফাটানো ভালো নয়। খুব বেশি এরকম করলে অস্থিসন্ধি বা জয়েন্ট দুর্বল হয়ে যেতে পারে। কিন্তু এর পর আরও যেসব গবেষণা হয় তাতে পাওয়া যায় অন্য তত্ত্ব।

আঙুল ফাটানোর বা মটকানোর সঙ্গে জয়েন্টের দুর্বল হয়ে যাওয়ার কোন সম্পর্কই নেই। ক্যালিফোর্নিয়ার এক চিকিৎসক ডক্টর ডনাল্ড আনগার এই বিষয়ের ওপর একটি গবেষণা করেন প্রায় ৬০ বছর ধরে। ৬০ বছর ধরে তিনি তার এক হাতের আঙুল ফাটিয়ে যান প্রতিদিন। কিন্তু অন্য হাতের আঙুলে কিছু করেন না।

আর ৬০ বছর হওয়ার পর দুই হাতের আঙুলের মধ্যে তেমন কোন পার্থক্য তার চোখে পড়ে না। দেখা যায় তিনি যে হাতের আঙুল ফাটিয়ে ছিলেন সেই হাতের আঙুলের সাথে অন্য হাতের অন্য আঙুলের কোন পার্থক্যই নেই। সেগুলি একই ও সম্পূর্ণ নরমাল আছে। এই গবেষণার জন্য তিনি নোবেল পুরষ্কারও জয় করেন।

তবে মনে রাখতে হবে এমনিতে তো বোঝাই যাচ্ছে আঙুল ফাটালে কোন ক্ষতি হয় না হাতের। তবে বেকায়দায় খুব জোড়ে এমনভাবে করবেন না যাতে ব্যাথা পায় বা হাড়ে চোট লেগে যায়। সাধারণত আঙুল ফাটালে কোন সমস্যা হবার কথা নয়। কিন্তু আঙুল ফাটাতে গেলে যদি খুব বেশি লাগে বা ব্যাথা হয় তাহলে কিন্তু অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
হতে পারে সেখানে কোন সমস্যা আছে। যদি কোনরকম ব্যাথা অনুভূত হয় বা অস্বস্তি হয় তাহলে জোড় করে কষ্ট না দেওয়াই ভালো। কিন্তু এই ধরণের কোন সমস্যা না হলে কোন ক্ষতির সম্ভবনা থাকে না। তাই মাঝে মধ্যে কাজের ফাঁকে দু একবার চলতেই পারে মটমট করে আঙুল ফাটানো।