কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি নিয়ে নবান্ন নির্দেশ দিলেও অন্য সুর ফিরহাদের

কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি নিয়ে নবান্ন নির্দেশ দিলেও অন্য সুর ফিরহাদের
কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি নিয়ে নবান্ন নির্দেশ দিলেও অন্য সুর ফিরহাদের

উৎসবের মরশুম কাটতেই হু হু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। গত ২৪ঘন্টায় রাজ্যের প্রায় হাজারের কাছাকাছি দৈনিক পৌঁছেছে আক্রান্তের সংখ্যা। এদিকে কলকাতাতেও সংখ্যাটা নেহাত কম নয়। তাই ফের কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করার নির্দেশ দিচ্ছেন মুখ্যসচিব হরেকৃষ্ণ দ্বিবেদী। শনিবার বিভিন্ন জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠক করে এমন নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

উদ্বিগ্ন মুখ্য সচিব জানিয়েছেন, রাজ্যজুড়ে নাইট কারফিউ আবার কড়াকড়ি করার পাশাপাশি কঠোরভাবে কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করতে হবে। এছাড়াও সকলে যাতে মাস্ক পড়েন সে বিষয়ে কড়া নজর দিতে হবে। একইসঙ্গে করোনা আক্রান্তদের খোঁজ চালানো এবং যথাযথ পরীক্ষা হচ্ছে কিনা সে বিষয়েও নজরদারি করার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্য সচিব। পাশাপাশি পরিস্থিতি যেভাবে উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে তাতে হাসপাতালগুলিতে কোভিড পরিষেবাকে আবার প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে কলকাতা পুরসভার মুখ্য প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম অবশ্য জানাচ্ছেন কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করা অত্যন্ত কঠিন বিষয়। একদিকে যখন মুখ্যসচিব মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করার বিষয়ে জোর দিচ্ছেন তখনই এই গোটা প্রক্রিয়াটি অত্যন্ত কঠিন বলেই মনে করছেন ফিরহাদ হাকিম।

এই প্রসঙ্গে ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, “দেখা যাচ্ছে একই পরিবারের মধ্যেই তিন চার জন আক্রান্ত হয়েছেন। সেক্ষেত্রে কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করা অত্যন্ত কঠিন বিষয়। মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করা এত সহজ নয়। ওটা এলাকাকে কমিউনিটিকে কন্টেইনমেন্ট জোনে ফেলে দেওয়া এতটা সম্ভব হবে না।”