কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভয় দেখিয়ে ভোট করানোর চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকারঃ ফিরহাদ

কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভয় দেখিয়ে ভোট করানোর চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকারঃ ফিরহাদ
কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভয় দেখিয়ে ভোট করানোর চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকারঃ ফিরহাদ

‘কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে দিল্লি সরকার রাজ্যের মানুষের মনে ভয় ধরিয়ে ভোট করার চেষ্টা করছে। কিন্তু এভাবে বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় আসতে পারবে না’। কার্যত এইভাবেই বিজেপিকে কটাক্ষ করলেন রাজ্যের পুর ও নগরন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বেশ কিছুদিন ধরেই বিভিন্ন মহলে দাবী উঠছিল অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচন কমিশন পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিক। এর জন্য সর্বাধিক পর্যায়ে এ রাজ্যে ভোটগ্রহন এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে দরবারও করেছে বিজেপি। মূলত এ সবের সূত্রে চলতি মাসেই ১২৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী আসতে চলেছে রাজ্যে।

সূত্রের খবর, আগামী সপ্তাহেই ধাপে ধাপে বাহিনীর জওয়ানরা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ঢুকতে শুরু করবে। ২৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তাঁদের চলে আসার কথা। রাজ্যে ইতিমধ্যেই মোতায়েন থাকা বাহিনীর সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করবেন তাঁরা। ভোট ঘোষণার আগেও বিভিন্ন স্পর্শকাতর এলাকায় টহলদারি চালাবেন বাহিনীর জওয়ানরা। এর অর্থ, বিধানসভা ভোটের সুর চড়ল আরও।

চলতি বছরের বিধানসভা নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ আইনশৃঙ্খলা। তা মানছেন দিল্লির নির্বাচন কমিশনের কর্তারাও। কমিশনের ফুল বেঞ্চ ইতিমধ্যেই রাজ্যের পরিস্থিতি পরিদর্শন করে গিয়েছে তিনদিনের সফরে এসে। সেসময় তাঁরা সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলে, প্রশ্ন করা হয়েছিল, সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে কি ভোটের মাসখানেক আগে থেকেই কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে বাংলায়? জবাবে তাঁরা জানিয়েছিলেন, নিয়ম মেনেই বাহিনী মোতায়েন করা হবে। ধাপে ধাপে সেই সংখ্যা বাড়ানো হবে।

ভোটের সময় কত বাহিনী হাতে থাকবে, তার উপর নির্ভর করবে কোথায় তাঁদের কীভাবে বিন্যস্ত করা যাবে। এই মুহূর্তে উত্তরাখণ্ডে বিপর্যয়। ফলে সেখানকার জন্য কিছু সংখ্যক বাহিনীকে মজুত রাখতে হচ্ছে। ফলে ঠিক কত সংখ্যক বাহিনী রাজ্যে আসছে, তা এখনই বলা সম্ভব নয় বলে কমিশন সূত্রে খবর।

আপাতত কেন্দ্রীয় বাহিনীর কাজ সীমান্তবর্তী এলাকায় টহলদারি, রুট মার্চ। স্পর্শকাতর ও অশান্ত জায়গার বাসিন্দাদের মনে ভরসা জোগাতে এমনিতেও ভোটের দিন কয়েক আগে থেকেই কেন্দ্রীয় বাহিনী সক্রিয় হয়ে ওঠে। এবারও তেমনটাই হতে চলেছে। তবে ফেব্রুয়ারির শেষ থেকেই রাজ্যে আধাসামরিক বাহিনী ঢুকতে শুরু করবে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর।

সূত্রের খবর, পশ্চিম মেদিনীপুর এবং বাঁকুড়ায় সবচেয়ে বেশি কোম্পানি আধাসেনা মোতায়েন করা হচ্ছে।

আরো পড়ুনঃ   টিকিট না পেয়ে এবার কী বিজেপিতে সোনালী গুহ? জল্পনা তুঙ্গে