ব্রিগেড করা মানেই মানুষের সমর্থন পেয়ে গেলেন, সেটা নয়, কটাক্ষ ফিরহাদের

ব্রিগেড করা মানেই মানুষের সমর্থন পেয়ে গেলেন, সেটা নয়, কটাক্ষ ফিরহাদের
file image

ব্রিগেড করা মানেই মানুষের সমর্থন পেয়ে গেলেন, সেটা নয়। ব্রিগেড শেষে তোপ দাগলেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। এদিন বাম-কংগ্রেস-আইএসএফের মহাজোটের ব্রিগেডে ভির ছিল চোখে পড়ার মত। যদিও এই ভির নিয়ে কটাক্ষ করেছেন বিরোধীরা।

এই প্রসঙ্গে ফিরহাদ হাকিম আরও বলেন, ‘আব্বাস সিদ্দিকির সময় সবাই ওঠে দাঁড়িয়েছিল। অধীর চৌধুরীর বেলায় কেউ দাঁড়ায়নি। বামপন্থীদের হাতে হাজারে হাজারে কংগ্রেস কর্মী মারা গিয়েছেন। এখন তাঁরা হাত মিলিয়েছে’।নির্বাচন নিয়ে রাজ্যজুড়ে তুঙ্গে প্রস্তুতি। এদিন ব্রিগেড সমাবেশ সারল বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ। এই ব্রিগেডের অন্যতম আকর্ষণ ছিল আইএসএফ প্রধান আব্বাস সিদ্দিকী।

ফিরহাদের কথায়, ‘বামেদের কিছু নিষ্ঠাবান কর্মী আছেন, তাঁরা ব্রিগেড করেন। ১৯৯৩ সালে আমরা যা ব্রিগেড করেছিলাম, তাতে পরের দিন ক্ষমতায় আসার কথা ছিল। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস করার পরেই মানুষের সেই ভরসা অর্জন করা গিয়েছে’।

অন্যদিকে, আত্মবিশ্বাসী হয়ে পুরমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলার মানুষ বিশ্বাস করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তিনিই তৃতীয়বারের জন্য আবার মুখ্যমন্ত্রী হবেন, বাংলার মানুষ এটা বাংলার দেওয়ালে লিখে দিয়েছেন। মোদীকে সরানোর ক্ষমতা যদি সারা ভারতে কারও থেকে থাকে, তাহলে তাঁর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.