অবিশ্বাস্য! আর মাত্র ৬ বছর! মহাশূন্যে খুলতে পারে হোটেল-বার, থাকছে সিনেমা হলও

অবিশ্বাস্য! আর মাত্র ৬ বছর! মহাশূন্যে খুলতে পারে হোটেল-বার, থাকছে সিনেমা হলও / Image Source- Tweeted By @OrbitalOps
অবিশ্বাস্য! আর মাত্র ৬ বছর! মহাশূন্যে খুলতে পারে হোটেল-বার, থাকছে সিনেমা হলও / Image Source- Tweeted By @OrbitalOps

অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি! আর মাত্র ৬ বছরের অপেক্ষা। তারপরই মহাশূন্যে খুলতে চলেছে হোটেল-বার। এমনকি থাকবে সিনেমা হলও। মূলত মহাকাশচারীদের জীবনে বিনোদনের নানা উপাদান যোগাতেই নেওয়া হয়েছে এই অভিনব উদ্যোগ। ফলে পৃথিবী ছেড়ে মহাশুন্যে পাড়ি দিলেও এবার কমতি হবে না মনোরঞ্জনের।

অভিনব এই উদ্যোগটি অরবিট্যাল অ্যাসেম্বলি কর্পোরেশন (Orbital Assembly Corporation)-এর মস্তিষ্কপ্রসূত। সম্প্রতিই তারা ভয়েজার (Voyager) স্পেস স্টেশনে একই নামের একটি স্পেস হোটেল খুলতে চলেছে! যা পৃথিবীর আর পাঁচটা পাঁচতারার মতোই মনোরঞ্জক উপাদানে ভরপুর থাকতে চলেছে। মূলত ২০২৫ সাল থেকেই NASA-র বিজ্ঞানী এবং ইঞ্জিনিয়ারদের একটি দল হোটেলটি তৈরির কাজ শুরু করে দেবেন। এমনকি ২০২৭ সালের মধ্যেই পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে এই হোটেল, দাবী করেছে অরবিট্যাল অ্যাসেম্বলি কর্পোরেশন।

শোওয়ার ঘর, রেস্তোরাঁ, বার, সিনেমা হল, লাইব্রেরি, কনসার্ট ভেন্যু, জিম, স্পা- কী কী থাকবে না সেখানে! পাশাপাশি থাকবে একটি লম্বা লাউঞ্জও। তবে জলের সমস্যার জন্য এই হোটেলে পুলের ব্যবস্থা থাকবে না। এই হোটেল পৃথিবীকে ৯০ মিনিটে একবার পাক খেয়েও আসবে। তার গায়ে থাকবে নানা পডস যা গবেষণার জন্য সরকার ভাড়া নিতে পারে।

তবে মহাশূন্যের হোটেলটির মাধ্যাকর্ষণ টান পুরোপুরি মহাকাশের মতো হবে না। কারণ, মহাশূন্যের জিরো গ্র্যাভিটিতে হাঁটাচলার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে ট্রেনিংয়ের মধ্যে থাকেন মহাকাশচারীরা। তাই ব্যাপারটি তাঁদের রপ্ত। কিন্তু পর্যটকদের ক্ষেত্রে তা একেবারেই সম্ভব নয়। তাই তাঁদের সুবিধার জন্য হোটেলের ভিতরে চাঁদের মাধ্যাকর্ষণের টান কৃত্রিম পদ্ধতিতে বজায় রাখা হবে বলেও জানিয়েছে হোটেল নির্মাতা সংস্থা।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.