ভাঙল ১০৪ বছরের নিয়ম! করোনার জেরে ভারত সেবাশ্রম সংঘে প্রথমবার ঢুকল মাছ-মাংস

ভাঙল ১০৪ বছরের নিয়ম! করোনার জেরে ভারত সেবাশ্রম সংঘে প্রথমবার ঢুকল মাছ-মাংস / প্রতীকী ছবি
ভাঙল ১০৪ বছরের নিয়ম! করোনার জেরে ভারত সেবাশ্রম সংঘে প্রথমবার ঢুকল মাছ-মাংস / প্রতীকী ছবি

ভাঙল পুরনো নিয়ম! তাও ১০৪ বছরে প্রথমবার। করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য ভারত সেবাশ্রম সংঘে ঢুকল মাছ-ডিম-মাংস। ১৯১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এই আশ্রমে এতদিন আমিষের প্রবেশ ছিল নিষিদ্ধ। কিন্তু করোনা আবহে বদলালো পুরনো নিয়ম। করোনা রোগীদের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে তাঁদের পাতে রাখা হচ্ছে মাছ, ডিম, মাংস। আবারও প্রমাণ হল, ধর্মের চেয়েও বড় হচ্ছে মানব সেবা!

শুক্রবার গড়িয়ার প্রণব নগরের ভারত সেবাশ্রম সংঘে খুলেছে কোভিড হাসপাতাল। আশ্রমের দু’টি তলা পরিণত হয়েছে কোভিড হাসপাতালে। সেই আশ্রমেই তৈরি হচ্ছে ডিম সেদ্ধ, মাংসের স্ট্যু ও মাছ। আশ্রমের স্বামীজিরা বলছেন, এই নিয়ম শুধুমাত্র করোনা আক্রান্তদের জন্য। কারণ, করোনা রোগীদের শরীর এমনিতেই দূর্বল থাকে। তাই তাঁদের প্রতিদিন প্রোটিন যুক্ত খাবার খাওয়া দরকার। রোজ খাদ্যতালিকায় প্রোটিন থাকা আবশ্যক। ফলে রোগীদের ডিম, মাছ, মাংস, ডাল, পনির, সোয়াবিন জাতীয় খাবার খাওয়ানোর জন্যই আশ্রমে রান্না হচ্ছে আমিষ খাবার।

আশ্রমের স্বামীজিদের এই সিদ্ধান্তের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন চিকিৎসকেরাও। তবে স্বামীজিদের বক্তব্য, ‘এই পরিস্থিতিতে ধর্মীয় অনুশাসনের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ মানবসেবা।’ তাই মানুষের সেবা করতেই নিয়ম ভেঙে রোগীদের পাতে পরিবেশন করা হচ্ছে আমিষ খাবার। চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনেই রোজ প্রোটিন থাকছে সেই খাদ্য তালিকায়।

প্রসঙ্গত, আশ্রমেরই প্রাক্তন ছাত্র রাজীব দত্তের উদ্যোগেই গড়ে উঠেছে এই কোভিড হাসপাতাল। ৩০ বেড বিশিষ্ট এই হাসপাতালের ২০ টি বেডে রয়েছে অক্সিজেনের ব্যবস্থা। ২৪ ঘণ্টার জন্য রয়েছেন ২ জন চিকিৎসক, ৪ জন নার্স এবং সেবাশ্রম সংঘের ১২ জন স্বেচ্ছাসেবক। সাধারণত যেসব রোগীদের শরীরে অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৮৫-এর বেশি কিন্তু কো-মর্বিডিটির কারণে বাড়িতে রাখাও ঝুঁকিপূর্ণ সেসব রোগীদের জন্যই খোলা হয়েছে এই হাসপাতাল। ইতিমধ্যেই ৩ জন রোগীও ভর্তি হয়ে গিয়েছেন সেখানে।