প্রথমবার মানবশরীরে ট্রায়ালের ছাড়পত্র পেল ভারত বায়োটেকের তৈরী করোনার ভ্যাকসিন

Image Source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ এই প্রথমবারের জন্য ভারত বায়োটেকের তৈরী করোনার ভ্যাকসিন “কোভ্যাকসিন”-কে হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য ছাড়পত্র দিল ড্রাগ কন্ট্রোল জেনারেল অফ ইন্ডিয়া। জুলাই মাসে শুরু হবে মানবশরীরে কোভ্যাকসিনের পরীক্ষা। বিশ্বজুড়ে মহামারির আবহে প্রায় প্রতিটি দেশই এখন তৎপরতার সাথে করোনার ভ্যাকসিন তৈরীতে মনোনিবেশ করেছে। এর আগে গত সপ্তাহেই অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যাডক্স ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়ালের খবর মেলে।

এবার হায়দরাবাদের ভারত বায়োটেক এবং ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চ যৌথভাবে কোভ্যাকসিন তৈরীর কাজ করেছে। অন্যান্য প্রাণীর ওপর ট্রায়ালের পর বিজ্ঞানীরা মনে করেছেন যে, এই ভ্যাকসিন মানবদেহের পক্ষে নিরাপদ। তাই এবার হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য সচেষ্ট হয়েছে ভারতীয় বিজ্ঞানীরা। ইতিমধ্যেই সেরাম ইনস্টিটিউট জানিয়েছে, আগামী কিছুদিনের মধ্যে প্রায় ২০ থেকে ৩০ লক্ষ ভ্যাকসিন তারা তৈরী করে ফেলবে। যাতে হিউম্যান ট্রায়াল সফল হলেই সাধারণ মানুষের কাছে এই ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া যায়।

সূত্রের খবর, সার্স কোভ-২ নামক সংক্রমক ভাইরাসের স্ট্রেন দিয়েই তৈরী করা হয়েছে কোভ্যাকসিন। এবিষয়ে ভারতীয় ফার্মাসিউটিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের এক্সিকিউটিভ সদস্য অরিত্র চট্টোপাধ্যায় জানান, “প্রতিষেধক তৈরী হয়ে গিয়েছে। সুতরাং করোনার অ্যান্টিবডি মানবশরীরে প্রয়োগ করা যাবে। তবে এই অ্যান্টিবডির স্থায়ীত্ব কতদিন, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। স্থায়ীত্বের ওপর নির্ভর করবে যে, কয়েক মাস পর ফের বুস্টার ডোজ নিতে হবে কিনা।”

আরও পড়ুনঃ  করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে প্রায় ৩ লাখের সোনার মাস্ক পরে ঘুরছেন পুনের এক ব্যক্তি

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.